এখনও পর্যন্ত এমকে-১এ হতে চলেছে তেজাসের সবচেয়ে আধুনিক এয়ারক্রাফট (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
এখনও পর্যন্ত এমকে-১এ হতে চলেছে তেজাসের সবচেয়ে আধুনিক এয়ারক্রাফট (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

অত্যাধুনিক তেজাস কেনায় সবুজ সংকেত প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের

  • এখনও পর্যন্ত এমকে-১এ হতে চলেছে তেজাসের সবচেয়ে আধুনিক এয়ারক্রাফট।

লাইট কমব্যাট এয়ারক্রাফট তেজাস এমকে-১এ কেনার পথে আরও একধাপ এগোল প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। হিন্দুস্তান অ্যারোনটিক্স লিমিটেডের (হ্যাল) থেকে ৮৩ টি সেই অত্যাধুনিক জেট কেনায় বুধবার সবুজ সংকেত দিয়েছে রাজনাথ সিংয়ের মন্ত্রক।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, কেনার প্রস্তাবটি এখন নিরাপত্তা বিষয়ক ক্যাবিনেট কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, 'প্রাথমিকভাবে ৪০ টি তেজাস এয়ারক্রাফটের বরাত দেওয়া হয়েছিল হ্যালকে। চুক্তিভিত্তিক ও অন্যান্য বিষয় চূড়ান্ত করে এখন সেই এয়ারক্রাফটের আরও আধুনিক ৮৩টি এমকে-১এ কেনার পথ প্রশস্ত করেছে ডিফেন্স অ্যাকুইজেশন কাউন্সিল।' এর ফলে, 'মেক ইন ইন্ডিয়া' প্রকল্প আরও গতি পাবে বলে দাবি তাঁর।

এখনও পর্যন্ত এমকে-১এ হতে চলেছে তেজাসের সবচেয়ে আধুনিক এয়ারক্রাফট। ডিজিটাল র‍্যাডারের ওয়ার্নিং রিসিভার-সহ একাধিক অত্যাধুনিক প্রযুক্তি থাকছে তাতে। চুক্তি স্বাক্ষরের তিন বছরের মধ্যে বায়ুসেনার হাতে প্রথম এমকে-১এ আসবে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা।

সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, ভারতের বায়ুসেনা তো বটেই, হ্যালের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে এই চুক্তি। কারণ হ্যালের নিজস্ব পরিকাঠামোয় উৎপাদন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। গত ১১ জানুয়ারি হিন্দুস্তান টাইমসের একটি রিপোর্টে তুলে ধরা হয়, ২০২১-২২ সালের পর হ্যালের হাতে কোনও বরাত নেই। ফলে ৩৮ হাজার কোটি টাকার সেই চুক্তি স্বাক্ষর হলে অক্সিজেন পাবে হ্যাল।


বন্ধ করুন