বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ক্যাম্পাসে পড়ুয়ার শ্লীলতাহানীর অভিযোগ উঠতেই উত্তাল JNU, চলল বিক্ষোভ
ক্যাম্পাসে পড়ুয়ার শ্লীলতাহানীর অভিযোগ উঠতেই উত্তাল JNU (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

ক্যাম্পাসে পড়ুয়ার শ্লীলতাহানীর অভিযোগ উঠতেই উত্তাল JNU, চলল বিক্ষোভ

  • অবিলম্বে অভিযুক্ত বাইকারকে গ্রেফতারের দাবিতে স্লোগান তোলেন পড়ুয়ারা। অভিযুক্তকে শনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এক পিএচডি পড়ুয়ার শ্লীলতাহানীর অভিযোগ ঘিরে উত্তাল হল ক্যাম্পাস। গত সোমবার রাতে শ্লীলতাহানীর ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে। তবে এই ঘটনায় এখনও কোনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এর জেরে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নর্থ গেটে দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন বহু পডুয়া। অবিলম্বে অভিযুক্ত বাইকারকে গ্রেফতারের দাবিতে স্লোগান তোলেন পড়ুয়ারা। বিক্ষোভকারী পড়ুয়াদের মতে, ওই পিএইচডি ছাত্রী গভীর রাতে ক্যাম্পাসে হাঁটছিলেন। তখন এক মোটরসাইকেল চালক তাঁকে যৌন হেনস্থা করে। অভিযুক্তকে শনাক্ত ও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এক পিএচডি পড়ুয়ার শ্লীলতাহানীর অভিযোগ ঘিরে উত্তাল হল ক্যাম্পাস। গত সোমবার রাতে শ্লীলতাহানীর ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে। তবে এই ঘটনায় এখনও কোনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এর জেরে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নর্থ গেটে দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন বহু পডুয়া। অবিলম্বে অভিযুক্ত বাইকারকে গ্রেফতারের দাবিতে স্লোগান তোলেন পড়ুয়ারা। বিক্ষোভকারী পড়ুয়াদের মতে, ওই পিএইচডি ছাত্রী গভীর রাতে ক্যাম্পাসে হাঁটছিলেন। তখন এক মোটরসাইকেল চালক তাঁকে যৌন হেনস্থা করে। অভিযুক্তকে শনাক্ত ও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

|#+|

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত ১১টা ৪৫ মিনিট নাগাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ব দিকের গেটের কাছে জেএনইউয়ের পিএইচডির ছাত্রীর উপর চড়াও হয় এক বাইক আরোহী। অভিযোগ, সেইসময় তরুণীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে সেই ব্যক্তি। কিন্তু কোনওরকমে ওই ব্যক্তির হাত ছাড়িয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হন ওই তরুণী। দিল্লি পুলিশের তরফে জানানো হয়, অনেক রাতে ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় পুলিশ। তবে এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। অভিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়েরই কেউ নাকি বহিরাগত, সে বিষয়ে অবশ্য কিছু জানা যায়নি।

দিল্লি পুলিশের ডিসি সাউথ গৌরব শর্মা জানান, মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা ৩৫৪ (এ) (যৌন হয়রানি) এবং ৩৫৪ (বি) (মহিলাকে আক্রমণ বা অপরাধমূলক বল প্রয়োগ) ধারায় একটি এফআইআর নথিভুক্ত করা হয়েছে এবং সন্দেহভাজনকে ধরার চেষ্টা চলছে।

বন্ধ করুন