বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রাজীব প্রয়াণে বিতর্কিত টুইটের জের, অধীরকে ‘হ্যাকড’ ডিভাইস জমা দিতে বলল দিল্লি পুলিশ
কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী  (HT_PRINT)

রাজীব প্রয়াণে বিতর্কিত টুইটের জের, অধীরকে ‘হ্যাকড’ ডিভাইস জমা দিতে বলল দিল্লি পুলিশ

  • Controversial Tweet by Adhir: রাজীব গান্ধীর প্রয়াণ দিবসে তাঁরই এক বিতর্কিত মন্তব্য টুইট করা হয়েছিল লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরীর অ্যাকাউন্ট থেকে। পরে সেই টুইটটি ডিলিট করা হয়েছিল।

রাজীব গান্ধীর প্রয়াণ দিবসে তাঁরই এক বিতর্কিত মন্তব্য টুইট করা হয়েছিল লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরীর অ্যাকাউন্ট থেকে। পরে সেই টুইটটি ডিলিট করা হয়েছিল। অধীর চৌধুরীর দাবি, এই টুইটের সঙ্গে তাঁর কোনও সম্পর্ক নেই। তিনি এই টুইট করেননি। তাঁর টুইটার হ্যান্ডেল হ্যাক করে কেউ এই কাণ্ড ঘটিয়েছে। তিনি এই বিষয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হবেন বলেও জানিয়েছিলেন। এই আবহে এবার দিল্লি পুলিশের তরফে অধীরবাবুকে তাঁর ‘হ্যাক’ হয়ে যাওয়া যন্ত্রটি জমা দিতে বলল তদন্তের স্বার্থে।

অধীরকে দেওয়া এক চিঠিতে দিল্লি পুলিশের তরফে লেখা হয়েছে, ‘যে যন্ত্রটি হ্যাক হয়েছে বলে আপনি অভিযোগ দায়ের করেছেন, সেই যন্ত্রটি তদন্তের স্বার্থে আমাদের কাছে জমা দিন। এই বিষয়ে আমরা আপনার সহযোগিতা আশা করছি। বিষয়টি নিয়ে যথার্থ আইনি পদক্ষেপ করা হচ্ছে।’

এর আগে শনিবার বেলা ১১টা ২৭ মিনিটে কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরীর টুইটার হ্যান্ডেলে দেখা গিয়েছিল একটি পোস্ট। রাজীব গান্ধীর ছবি সমেত সেই পোস্টে লেখা ছিল, যখন বড় গাছ পড়ে তখন মাটি কেঁপে ওঠে।' টুইটটি দেখে অনেকেরই মনে পড়ে যায় সেই ১৯৮৪ সালের কথা। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর প্রয়াণের পরে তুমুল অস্থিরতা তৈরি হয়েছিল গোটা দেশে। শিখ বিরোধী দাঙ্গা বেঁধে গিয়েছিল দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। আর তখন সেই হিংসার পক্ষে যুক্তি দিয়ে ঠিক এই মন্তব্যটাই করেছিলেন রাজীব গান্ধী। আর এনিয়ে সেই সময় বিতর্ক কিছু কম হয়নি। আর এতদিন পরে অধীর চৌধুরীর টুইটার হ্যান্ডেলে রাজীবের সেই বিতর্কিত লাইন ভেসে ওঠায় নতুন করে বিতর্ক শুরু হয় রাজনৈতিক মহলে। তবে পরে ওই বিতর্কিত টুইট সরিয়ে রাজীব গান্ধীর ছবি সম্বলিত অন্য টুইট করা হয়। অধীর এরপর এক টুইট বার্তায় লেখেন, বিরোধীরা কুৎসা করার জন্য এসব করছে।

বন্ধ করুন