বাড়ি > ঘরে বাইরে > দিল্লিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩, বাতিল পরীক্ষা
অশান্ত দিল্লি (ছবি সৌজন্য এেএনআই)
অশান্ত দিল্লি (ছবি সৌজন্য এেএনআই)

দিল্লিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩, বাতিল পরীক্ষা

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বৈঠক, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আবেদনের পরও পালটাল না ছবি।

দিল্লিতে সিএএ বিরোধী আন্তোলন কেন্দ্র করে হিংসায় প্রাণ হারালেন এখনও পর্যন্ত ১৩ জন। মঙ্গলবার রাতে এই হিসেব দিয়েছে শহরের গুরু তেগ বাহাদুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। আহত হয়েছেন ১৩০ জন নাগরিক।।

পরিস্থিতির অবনতির জেরে উত্তর-পূর্ব দিল্লির কেন্দ্রগুলিতে আগামিকাল বুধবার দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিবিএসই। আগামিকাল ওই এলাকায় সমস্ত স্কুল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে বলে ঘোষণা করেছেন দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া। একই সঙ্গে বুধবার পরীক্ষা বাতিলের জন্য সিবিএসই কর্তৃপক্ষের প্রতি আর্জি জানান সিসোদিয়া। তাতেই সাড়া দিয়ে রাতে বুধবারের পরীক্ষা বাতিল ঘোষণা করে পর্ষদ।


কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বৈঠক, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আবেদনের পরও পালটাল না ছবি। উত্তর-পূর্ব দিল্লির মৌজপুরে আবারও চলল গুলি। যেখান থেকে ন্যাশনাল ক্যাপিটাল রিজিওয়নের (এনসিআর) দূরত্ব মেরেকেটে ২০ কিলোমিটার।


আরও পড়ুন : শনাক্ত দিল্লি সংঘর্ষে আট রাউন্ড গুলি চালানো যুবক, গ্রেপ্তার শাহরুখ

এদিন ব্রহ্মপুরীতে দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। পাথর ছোড়া হয়। সেখান থেকে উদ্ধার হয় গুলির খোল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এলাকায় ফ্ল্যাগ মার্চ করে র‌্যাফ। দিল্লি পুলিশের তরফে বলা হয়, 'পরিস্থিতি অত্যন্ত জটিল। উত্তর-পূর্ব দিল্লি থেকে হিংসাত্মক ঘটনা নিয়ে আমরা ক্রমাগত ফোন পাচ্ছি।'

উত্তপ্ত ছিল মৌজপুরও। সকাল থেকে সেখানে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) পন্থী ও বিরোধী সমর্থকরা কার্যত বিনা বাধায় দাপিয়ে বেড়ায়। ধরা পড়ে হিংসাত্মক ছবি। একটি চারতলা বাড়ি থেকে একটি দলকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়া হচ্ছিল। সেই বাড়িটি পুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে সেই দলের সমর্থকরা। পুড়িয়ে দেওয়া হয় বাইক। ঘটনাস্থলে থাকলেও কার্যত চুপ করে দাঁড়িয়েছিল পুলিশ। মাঝেমধ্যে সক্রিয় হয়ে সিএএ-বিরোধী সমর্থকদের দিকে নজর দিচ্ছিল তারা। ব্যস, এইটুকুই।

আরও পড়ুন : দিল্লিতে পাথরের ঘায়ে গুরুতর আহত, বিপন্মুক্ত DCP

এরইমধ্যে দুপুর দেড়টা নাগাদ পিস্তল বের করে সিএএ বিরোধীদের লক্ষ্য করে একাধিকবার গুলি চালায় এক সিএএ সমর্থক। তারপর আরও কয়েকজন সিএএ সমর্থক পিস্তল বের করে গুলি চালায়। সিএএ বিরোধী সমর্থকদের অনেকের হাতে অস্ত্র ছিল। তারাও গুলি চালায়। দুপুরের দিকে ভজনপুরা চকেও দুই গোষ্ঠীর মধ্যে খণ্ডযুদ্ধ বাধে। শুরু হয় পাথরবৃষ্টি।

আরও পড়ুন : ট্রাম্পের সফরের সময়েই দিল্লিতে হিংসার রমরমা, ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছে কেন্দ্র

যদিও অশান্তি রুখতে ১২ ঘণ্টার মধ্যে দু'বার বৈঠক করেন খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সোমবার গভীর রাতে উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকের পর এদিন বেলা ১২টা থেকে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী, উপরাজ্যপাল অনিল বাইজাল-সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

আরও পড়ুন : CAA নিয়ে খণ্ডযুদ্ধ উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে

শান্তি ফিরিয়ে আনতে সকল রাজনৈতিক দলকে একসঙ্গে কাজের আহ্বান জানান। শাহ আশ্বস্ত করেন, হিংসা রুখতে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। গুজব আটকাতে স্থানীয় রাজনৈতিক প্রতিনিধি ও পুলিশের মধ্যে সমন্বয় আরও দৃঢ় করার পরামর্শ দেন শাহ। বৈঠক থেকে বেরিয়ে কেজরিওয়াল বলেন, 'ইতিবাচক বৈঠক হয়েছে। এটা সিদ্ধান্ত হয়েছে যে আমাদের শহরে শান্তি ফিরে আসার বিষয়ে সব রাজনৈতিক দল কাজ করবে।' একইসুর শোনা যায় দিল্লির বিজেপি মনোজ তিওয়ারির গলায়। তিনি বলেন, 'আমরা রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার বিষয়ে একমত হয়েছি।'

বৈঠকে অমিত শাহ-অরবিন্দ কেজরিওয়াল (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
বৈঠকে অমিত শাহ-অরবিন্দ কেজরিওয়াল (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

আরও পড়ুন : উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে মঙ্গলবার বন্ধ থাকবে সব স্কুল, বাতিল পরীক্ষা

এদিন সকালে শান্তি বজায় রাখার আর্জি জানান কেজরিওয়াল। নিজের বাসভবনে জরুরি বৈঠক করেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। বৈঠকে হিংসা কবলিত এলাকার বিধায়ক ও আধিকারিকরা ছিলেন। কিন্তু তারপরও উন্নতি হয়নি পরিস্থিতির।

বন্ধ করুন