যৌন শিকারিরা শিশুদের সবচেয়ে বেশি নিশানা করছে।
যৌন শিকারিরা শিশুদের সবচেয়ে বেশি নিশানা করছে।

কলকাতা-সহ লকডাউনে সব শহরেই বেড়েছে শিশু পর্নোগ্রাফির চাহিদা, বলছে রিপোর্ট

  • শিশুদের উপর যৌন নিপীড়নের কনটেন্ট নিয়ে যে আগ্রহ তৈরি হয়েছে তাতে স্পষ্ট যে, যৌন শিকারিরা শিশুদের সবচেয়ে বেশি নিশানা করছে।

COVID-19 এর জেরে লকডাউনে উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে শিশু পর্নোগ্রাফির চাহিদা। দেশের মহানগরীর তালিকায় রয়েছে কলকাতার নাম, জানাল ভারতীয় শিশু নিরাপত্তা তহবিলের (ICPF) সাম্প্রতিক রিপোর্ট।

সোমবার প্রকাশিত Child Sexual Abuse Material in India শীর্ষক রিপোর্টে বলা হয়েছে, গত ডিসেম্বর মাসে দেশের ১০০টি বড় শহরে শিশু পর্নোগ্রাফি সংক্রান্ত সামগ্রীর গড় চাহিদা ছিল মাসে ৫০ লাখ, যা বর্তমানে অনেক বেড়েছে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, লকডাউনে সেই সংক্রান্ত অনলাইন কনটেন্টের চাহিদা বেড়ে গিয়েছে প্রায় ২০০%। বলা হয়েছে, ‘এর থেকে বোঝা যায় লকডাউন পর্বে ভারতের শিশুদের নিরাপত্তা বাস্তবে কী ভয়ানক বিপদের সম্মুখীন হয়েছে। শিশুদের যৌন নিপীড়নের কনটেন্ট নিয়ে যে আগ্রহ তৈরি হয়েছে তাতে স্পষ্ট যে, যৌন শিকারিরা শিশুদের সবচেয়ে বেশি নিশানা করছে।’

কলকাতা, নয়াদিল্লি, চেন্নাই ও মুম্বইয়ের মতো মেট্রো নগরী ছাড়াও বেশ কয়েকটি দ্বিতীয় সারিতে থাকা শহর যেখানে করোনা সংক্রমণের রমরমা দেখা দিয়েছে, সেগুলি শিশু যৌন নিগ্রহের হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।

ICPF-এর মুখপাত্র নিবেদিতা আহুজা জানিয়েছেন, ‘সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া বিধান ও জাতীয় নীতি সরাসরি অমান্য করার এ এক ভয়াবহ নিদর্শন। ইউআরএল বদলে ভারতীয় আইনের সঙ্গে লুকোচুরি খেলছে পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইটগুলি।’

বন্ধ করুন