বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > টিকা না দিলে শাস্তি বা জরিমানা, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে দাবি জার্মানিতে
টিকা না দিলে শাস্তি বা জরিমানা, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে দাবি জার্মানিতে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
টিকা না দিলে শাস্তি বা জরিমানা, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে দাবি জার্মানিতে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

টিকা না দিলে শাস্তি বা জরিমানা, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে দাবি জার্মানিতে

  • বিভিন্ন মহল থেকে উঠছে তেমনই প্রস্তাব।

জার্মানি তথা ইউরোপে জোগান সত্ত্বেও করোনা টিকার চাহিদা কমতে থাকায় শাস্তি অথবা জরিমানা মাধ্যমে টিকাদান কর্মসূচিতে গতি আনার ডাক বাড়ছে৷ এদিকে সাইপ্রাস ও কাতালানাও ডেল্টার কবলে পড়েছে৷

ইউরোপের কিছু প্রান্তে করোনা ভাইরাসের ছোঁয়াচে ডেল্টা প্রজাতির প্রকোপ বেড়ে চলায় দুশ্চিন্তা বাড়ছে৷ করোনা টিকাদান কর্মসূচির গতি আরও বাড়িয়ে সংক্রমণের নতুন ঢেউ এড়ানোর চেষ্টা করছে জার্মানির মতো কিছু দেশ৷ কিন্তু টিকার সরবরাহ আগের তুলনায় বেড়ে গেলেও অবশিষ্ট মানুষের মধ্যে টিকা নেওয়ার তাগিদ বাড়ানো সব ক্ষেত্রে সম্ভব হচ্ছে না৷ এমনকী টিকা নেবার দিনক্ষণ স্থির করেও উপস্থিত হচ্ছেন না অনেকে৷

এই অবস্থায় জার্মানির রাজনৈতিক মহলে এমন মানুষের জন্য শাস্তিমূলক পদক্ষেপের দাবি উঠছে৷ বিশেষ করে ঠিক সময়ে টিকার দ্বিতীয় ডোজ না নিয়ে সুরক্ষা অসম্পূর্ণ রাখার পরিণতি সম্পর্কে সতর্ক করে দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা৷ শাসক জোটের শরিক দলের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ কার্ল লাউতারবাখ টিকার অ্যাপয়েন্টমেন্ট বাতিলের শাস্তি হিসেবে আর্থিক জরিমানার ডাক দিয়েছেন৷ তার মতে, এমন ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ আচরণের কারণে মূল্যবান টিকা ফেলে দিতে হতে পারে৷ তিনি নিজে এক টিকাদান কেন্দ্রে কাজ করে এমন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন বলে জানিয়েছেন৷ উল্লেখ্য, জার্মানিতে ইতিমধ্যে ৫৫ শতাংশেরও বেশি মানুষ করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন এবং প্রায় ৪০ শতাংশ সব ডোজ পেয়ে গিয়েছেন৷

জার্মানিতে প্রতি এক লাখ মানুষের মধ্যে করোনা সংক্রমণের গড় সাপ্তাহিক হার পাঁচে নেমে আসার ফলে অনেক মানুষ করোনা সংকট পুরোপুরি কেটে গিয়েছে বলে মনে করছেন৷ জনজীবন আগের তুলনায় অনেক বেশি স্বাভাবিক হয়ে ওঠায় টিকা নেওয়ার তাগিদ অনুভব করছেন না কিছু মানুষ৷ টিকা সম্পর্কে আশঙ্কায় থাকা এই কর্মসূচির আওতার বাইরে রয়েছেন৷ তাই শাস্তির বদলে প্রণোদনার মাধ্যমে দ্রুত আরও বেশি মানুষের মনে টিকা সম্পর্কে উৎসাহ বাড়ানোর প্রস্তাব দিচ্ছেন কিছু রাজনৈতিক নেতা৷ সিডিইউ দলের নেতা ও আগামী নির্বাচনে চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট বলেন, জরিমানার মাধ্যমে সংহতিবোধ জাগানো যায় না৷ জার্মানির এক চিকিৎসক সংগঠনেক প্রধান টিকাপ্রাপ্ত মানুষের জন্য সব রকম নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবার ডাক দিয়েছেন৷

ব্রিটেন, রাশিয়া ও পর্তুগালের পর সাইপ্রাস ও স্পেনের কাতালান প্রদেশেও ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের কারণে করোনা সংক্রমণের হার দ্রুত বেড়ে চলায় সে সব জায়গায় ভ্রমণ সম্পর্কে সতর্কতা জারি করছে জার্মানিসহ অনেক দেশ৷ গ্রীষ্মের ছুটির মরসুমে সংক্রমণ আরও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা বাড়ছে৷ ইউরোপীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র ইসিডিসি-র মতে, আগামী অগস্ট মাসের শেষের মধ্যে ইউরোপে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ডেল্টার অনুপাতের মাত্রা হবে প্রায় ৯০ শতাংশ৷ তাই টিকাদান কর্মসূচির গতি আরও না বাড়ালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হবে বলে সতর্ক করে দিয়েছে এই প্রতিষ্ঠান৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও ইউরোপের পরিস্থিতি সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে৷

বন্ধ করুন