বাড়ি > ঘরে বাইরে > সুস্থ ও মজবুত গণতন্ত্রর জন্য মতবিরোধ জরুরি, দাবি সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির
বিচারপতি দীপক গুপ্তা।
বিচারপতি দীপক গুপ্তা।

সুস্থ ও মজবুত গণতন্ত্রর জন্য মতবিরোধ জরুরি, দাবি সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির

  • প্রশাসন, বিচার ব্যবস্থা, কূটনীতি এবং প্রতিরক্ষা বাহিনীর বিরুদ্ধে সমালোচনাকে কখনই দেশদ্রোহীতা বলা যায় না।সরকারকে প্রশ্ন করা, চ্যালেঞ্জ জানানো এবং তার পদক্ষেপের পর্যালোচনা করার অধিকার প্রতিটি নাগরিকের রয়েছে।

মতবিরোধের অধিকার গণতন্ত্রের জন্য আবশ্যিক। প্রশাসন, বিচার ব্যবস্থা, কূটনীতি এবং প্রতিরক্ষা বাহিনীর বিরুদ্ধে সমালোচনাকে কখনই দেশদ্রোহীতা বলা যায় না। এমনই মন্তব্য করলেন সুপ্রিম কোর্টের বর্ষীয়ান বিচারপতি দীপক গুপ্তা।

সোমবার সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত ‘গণতন্ত্র ও প্রতিবাদ’ শীর্ষক আলোচনাসভায় তাঁর ভাষণে বিচারপতি বলেন, মতবিরোধের অধিকার সংবিধান প্রদত্ত মৌলিক অধিকারের মধ্যে সবচেয়ে বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তাঁর মতে, ‘মতবিরোধ ছাড়া গণতন্ত্র সম্ভব নয়।’

বিচারপতি গুপ্তা বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত কোনও ব্যক্তি আইনভঙ্গ করছেন অথবা সংঘাতে মদত দিচ্ছেন, দেশের অন্যান্য নাগরিকদের সঙ্গে তাঁর মতবিরোধের অধিকার রয়েছে। তাঁর দাবি, সবাইকে খোলা মনে সমালোচনার সম্মুখীন হতে হবে এবং বিচার ব্যবস্থাও সমালোচনার উর্ধ্বে নয়।

এই প্রসঙ্গে বিচারপতি গুপ্তা ব্যাখ্যা করেন, ‘দেশের উচ্চতর আদালতের বিচারপতিদের যদি সমস্ত ঘৃণামূলক সওয়াল-জবাবের বিষয়ে খেয়াল রাখতে হয়, তা হলে অন্যান্য মামলায় তাঁরা সময় দিতে পারবেন না। সত্যি বলতে কি, আমি বিচার ব্যবস্থার সমালোচনা আহ্বান করছি কারণ তা হলেই উন্নয়ন সম্ভব।’

সেই সঙ্গে পর্যালোচনার গুরুত্ব সম্পর্কেও নিজের মত ব্যক্ত করেন বিচারপতি। তাঁর মতে, ‘পর্যালোচনা করলে দেখতে পাই যে, আমাদের নেওয়া বহু সিদ্ধান্তই পরবর্তীকালে ভুল প্রমাণিত হয়েছে এবং সেগুলি শুধরে নেওয়ার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে।’

আগামী ৬ মে অবসর নিতে চলা বিচারপতি গুপ্তা আরও বলেন, ‘সরকারকে প্রশ্ন করা, চ্যালেঞ্জ জানানো এবং তার পদক্ষেপের পর্যালোচনা করার অধিকার প্রতিটি নাগরিকের রয়েছে।’

তাঁর মতে, নাগরিকের এই সমস্ত অধিকার খর্ব করলে এক প্রশ্নহীন অনুন্নত সমাজ সৃষ্টি হবে।

বন্ধ করুন