বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Skeletons at Harappan-era Rakhigarhi: ধ্বংসাবশেষ থেকে উঠে এল হরপ্পাযুগের নরকঙ্কাল! শুরু খোঁজ, তদন্ত, ডিএনএ বিশ্লেষণ
নরকঙ্কাল উদ্ধার ঘিরে উত্তেজনা তুঙ্গে।
নরকঙ্কাল উদ্ধার ঘিরে উত্তেজনা তুঙ্গে।

Skeletons at Harappan-era Rakhigarhi: ধ্বংসাবশেষ থেকে উঠে এল হরপ্পাযুগের নরকঙ্কাল! শুরু খোঁজ, তদন্ত, ডিএনএ বিশ্লেষণ

  • দিল্লি থেকে ১৫০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে রাখিগারহি সাইট। মনে করা হচ্ছে ফেব্রুয়ারি মাসে উদ্ধার হওয়া বিভিন্ন সামগ্রী ঘিরে নানান উত্তর দিতে পারে ডিএনএ বিশ্লেষণ। আপাতত লখনউতে এই নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে এই ডিএনএর বিষয়ে উত্তর এলেই জানা যাবে বহু উত্তর।

হরিয়ানার রাখিগাড়হিতে কার্যত সাড়া পড়ে গিয়েছে। সেখানে এক খননকার্যের সময় উদ্ধার হয়েছে, এক পাঁচ হাজার বছর পুরনো হরপ্পা যুগের বহু সামগ্রী। উদ্ধার হয়েছে সেই সময়কালের দুটি নরকঙ্কাল। মনে করা হচ্ছে এই নরকঙ্কাল মহিলাদের। সেই যুগে মৃতদের সমাধিস্থ করার প্রচলন ছিল বলে মনে করা হয়। আপাতত এই কঙ্কালের ডিএনএ পাঠানো হয়েছে ল্যাবে। সেখানে চলছে বিশ্লেষণ।

নরকঙ্কাল ছাড়াও এলাকা থেকে উদ্ধার হয়েছে, বেশ কিছু পাত্র ও শিল্প সামগ্রী। যা মনে করা হচ্ছে হরপ্পাযুগের। এমনই দাবি করেছেন এএসআই কর্তৃপক্ষ। আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার তরফে এসকে মঞ্জুল জানিয়েছেন,' সাতটি স্তূপ খনন করা হয়েছে এলাকার দুটি গ্রাম থেকে। যা হরিয়ানার হিসারের রাখিগারহি আর্কিএলজিক্যাল সাইটের অংশ। আরজিআর সেভেন (নরকঙ্কাল) হল একটি কবরখানা। যা হরপ্পান যুগের। যা খুবই ভাল দেখভাল করা হত বলে মনে করা হচ্ছে। সেখানে দুইমাস আগে দুইটি কঙ্কাল উদ্ধার হয়েছে। এক সপ্তাহ আগে তাদের ডিএনএ পাঠানো হয়েছে বিশেষজ্ঞদের কাছে।'

উল্লেখ্য, দিল্লি থেকে ১৫০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে রাখিগারহি সাইট। মনে করা হচ্ছে ফেব্রুয়ারি মাসে উদ্ধার হওয়া বিভিন্ন সামগ্রী ঘিরে নানান উত্তর দিতে পারে ডিএনএ বিশ্লেষণ। আপাতত লখনউতে এই নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে এই ডিএনএর বিষয়ে উত্তর এলেই জানা যাবে এই ঘটনার নেপথ্যে আসল ঘটনা কী। মনে করা হচ্ছে, দাঁত থেকে নেওয়া নমুনা বলে দিতে পারে, সেই সময়ের মানুষের খাদ্যাভ্যাস নিয়ে নানান অজানা কাহিনি। উল্লেখ্য, হরপ্পা যুগের সবচেয়ে বড় সাইট মহেঞ্জোদারো, হরপ্পা, গারওয়েইরিওয়ালা বর্তমানে পাকিস্তানে। শুধুমাত্র রাখিগারহি ও ঢোলাভিরা রয়েছে ভারতে। আর সেই এলাকাতেই উঠে এসেছে এই তাক লাগানো ঘটনা।

বন্ধ করুন