বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দিল্লির রোহিনীকোর্টে বিস্ফোরণে ধৃত DRDO বিজ্ঞানী,প্রাক্তন প্রতিবেশীকে খুনের ছক
ধৃত DRDO বিজ্ঞানী ভরত ভূষণ কাটারিয়া  (HT_PRINT)
ধৃত DRDO বিজ্ঞানী ভরত ভূষণ কাটারিয়া  (HT_PRINT)

দিল্লির রোহিনীকোর্টে বিস্ফোরণে ধৃত DRDO বিজ্ঞানী,প্রাক্তন প্রতিবেশীকে খুনের ছক

  • দিল্লি পুলিশের দাবি, ৪৭ বছর বয়সী ভরত ভূষণ কাটারিয়া নিজের প্রাক্তন প্রতিবেশীকে খুন করতেই এই বিস্ফোরণ ঘটান।

গত ৯ ডিসেম্বর দিল্লির রোহিনী কোর্টে বিস্ফোরণ ঘটেছিল। বিস্ফোরণে কোনও হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও এতে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। এবার সেই ঘটনায় গ্রেফতার করা হল ডিআরডিও-র এক বিজ্ঞানীকে। জানা গিয়েছে, ৪৭ বছর বয়সী ভরত ভূষণ কাটারিয়া নিজের প্রাক্তন প্রতিবেশীকে খুন করতেই এই বিস্ফোরণ ঘটান। 

কাটারিয়া তাঁর প্রাক্তন প্রতিবেশী অমিত বশিষ্টকে হত্যা করতে চেয়েছিলেন। অমিত বশিষ্ট একজন আইনজীবী। তাঁর সঙ্গে ডিআরডিও বিজ্ঞানী প্রায় এক দশক ধরে দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ে জড়িয়েছিলেন। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছে, বিজ্ঞানী প্রায় এক মাস ধরে ইম্প্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস দিয়ে এই বিস্ফোরণের পরিকল্পনা করেছিলেন।

বশিষ্ঠ আদালতের ১০২ নম্বর কোর্টরুমে ছিলেন যখন কাটারিয়া আইনজীবীর চেয়ারের পিছনে একটি স্টিলের টিফিন বক্সে বোমা সমেত একটি কালো ল্যাপটপ ব্যাগ রেখে গিয়েছিলেন। এরপর তিনি রিমোট কন্ট্রোল ব্যবহার করে বিস্ফোরণ ঘটান। পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দু'জনেরই ১০২ নম্বর কোর্টরুমে শুনানিতে অংশ নেওয়ার কথা ছিল।

ঘটনায় বশিষ্ঠ তাঁর পায়ে শক এবং ছোটখাটো আঘাত পান এবং আদালতে উপস্থিত কনস্টেবল রাজীব বাম কাঁধ এবং পায়ে আঘাত পান। যেহেতু ইম্প্রোভাইজড বোমাটি সঠিকভাবে একত্রিত করা হয়নি, তাই বিস্ফোরণটি শুধুমাত্র একটি ১২ ভোল্টের টু-হুইলারের ব্যাটারি ডেটোনেটরে ঘটেছিল বলে পুলিশ জানায়। দিল্লি পুলিশ কমিশনার রাকেশ আস্থানা এই বিষয়ে বলেন, ‘চার্জ করা বিস্ফোরক পদার্থে বিস্ফোরণ ঘটলে মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারত। আইইডিতে কিছু নতুন লোহার স্ক্রু ও স্ক্র্যাপনেল ব্যবহার করা হয়েছে।’ এদিকে ডিআরডিও বিজ্ঞানীর বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে পুলিশ বোমা তৈরির প্রমাণ পেয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় কাটারিয়া হাতে দুটি কালো ব্যাগ নিয়ে আদালতে ঢুকছেন।

 

 

বন্ধ করুন