বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'গুজরাত থেকেই সারা দেশে মাদক ছড়িয়ে পড়ে?', BJP-কে তোপ দেগে প্রশ্ন নবাব মালিকের
এনসিপি নেতা তথা মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী নবাব মালিক (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (HT_PRINT)
এনসিপি নেতা তথা মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী নবাব মালিক (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (HT_PRINT)

'গুজরাত থেকেই সারা দেশে মাদক ছড়িয়ে পড়ে?', BJP-কে তোপ দেগে প্রশ্ন নবাব মালিকের

  • গতকালই গুজরাতের দ্বারকা জেলায় মহারাষ্ট্রের এক সবজি বিক্রেতার কাছ থেকে ৮৮.২৫ কোটি টাকা মূল্যের ১৭ কেজি মাদক।

এনসিপি নেতা তথা মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী নবাব মালিক এবার বিজেপিকে তোপ দাগতে গুজরাত বন্দরে বাজেয়াপ্ত হওয়া মাদকের প্রসঙ্গ তুললেন। কয়েক সপ্তাহ আগেই গুজরাত বন্দর থেকে মাদক ভর্তি দুটি বিশাল কন্টেনার বাজেয়াপ্ত হয়েছিল। ভারতের ইতিহাসে সেটাই সবথেকে বড় পরিমাণের মাদক বাজেয়াপ্ত করার ঘটনা। এরপর ফের একবার মাদক বাজেয়াপ্ত হয় গুজরাতে। সেই ঘটনা তুলে এনে নবাব মালিক বলেছেন যে গুজরাত থেকে সারা দেশে মাদক ছড়িয়ে পড়ে কিনা তা পরীক্ষা করা দরকার।

উল্লেখ্য, বুধবার, গুজরাতের দ্বারকা জেলায় মহারাষ্ট্রের এক সবজি বিক্রেতার কাছ থেকে ৮৮.২৫ কোটি টাকা মূল্যের ১৭ কেজি হেরোইন এবং মেথামফেটামিন জব্দ করা হয়েছিল। তার আটকের ফলে দ্বারকা জেলার উপকূলীয় শহর সালায়ায় একটি আবাসিক প্রাঙ্গণ থেকে ৪৭টি মাদক ভর্তি প্যাকেট উদ্ধার করা হয়।

এদিকে নবাব মালিকের মেয়ে নিলোফার খান মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের অন্যতম শীর্ষ বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবীশকে আইনি নোটিস পাঠালেন। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই সমীরের বিরুদ্ধে মাদক কারবারে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। এই নিয়ে তদন্তও চলছে। কিন্তু তার মধ্যেই গত ১ নভেম্বর দেবেন্দ্র ফড়নবীশ সমীরের কাছে মাদক থাকার অভিযোগ তোলেন। এই অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন সমীরের আইনজীবী।

ফড়নবীশকে পাঠানো আইনি নোটিসে তাঁর উদ্দেশ্যে বলা হয়েছে, সমীরের বিরুদ্ধে তোলা যাবতীয় অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। এমনকী, এনসিবি সমীরের বিরুদ্ধে যে চার্জশিট জমা করেছে, তাতেও ফড়নবীশের তোলা অভিযোগের স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ নেই। বরং ওই চার্জশিটেই জানানো হয়েছে, গত ১৪ জানুয়ারি সমীরের বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালানো হলেও সেখান থেকে বা সমীরের হেফাজত থেকে কোনও সন্দেহজনক বা আপত্তিকর জিনিস উদ্ধার হয়নি। এক্ষেত্রে ফড়নবীশের তোলা অভিযোগকে ভিত্তিহীন ও অতিরঞ্জিত বলে উল্লেখ করা হয়েছে আইনি নোটিসে।

বন্ধ করুন