বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাংলায় জিতলেই হতে পারে গুজরাটে তাড়াতাড়ি নির্বাচন, বড় ঘোষণা মন্ত্রীর
ব্রিগেডে বিজেপির সমর্থকদের ভিড়। (ছবি সৌজন্য বিজেপি)
ব্রিগেডে বিজেপির সমর্থকদের ভিড়। (ছবি সৌজন্য বিজেপি)

বাংলায় জিতলেই হতে পারে গুজরাটে তাড়াতাড়ি নির্বাচন, বড় ঘোষণা মন্ত্রীর

  • মন্ত্রীর এই ধরণের মন্তব্যে রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

বাংলায় বিজেপি বিধানসভা নির্বাচনে জিতলে গুজরাটে বিধানসভা ভোট এগিয়ে আনা হবে। এই মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছে গুজরাটের এক মন্ত্রীর মুখে। মন্ত্রীর এই ধরণের মন্তব্যে রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। এখন বাংলার নির্বাচন দোরগোড়ায়। ২৭ মার্চ থেকে এখানে নির্বাচন শুরু হয়ে যাবে। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর গড় গুজরাটের মন্ত্রীর এমন দাবি জোর চর্চা কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

দক্ষিণ গুজরাটের উমাগ্রামে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আদিবাসী উন্নয়ন মন্ত্রী রমন পাটকার বলেন, ‘‌পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে বিজেপি জিতলেই খুব কম সময়ের মধ্যে গুজরাটেও ভোট ঘোষণা করা হতে পারে। সেক্ষেত্রে বিধানসভা ভোটের সময় এগিয়ে আনা হতে পারে।’‌ একই সঙ্গে তিনি জানান, দল যখন সব জাযগায় জেতে, তখনই ভোট করানোর উপযুক্ত সময়। তিনি আরও জানান, দলের সংসদীয় কমিটি বা কেন্ট্রীয় নেতৃত্বের কাছে এই বার্তাই পৌঁছে যায় যে, এখনই ভোট করালে তা দলের পক্ষে ইতিবাচক বার্তাই বহন করবে।

সম্প্রতি গুজরাটে পুরসভা ভোটে বড় জয় পেয়েছে গেরুয়া শিবির। এখন এই জয় এলেও এই ধারাকে বেশিদিন ধরে রাখা সম্ভব কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। কারণ বিশেষ করে যখন দিল্লিতে কৃ্যক আন্দোলন চলছে, তার আঁচ যে গুজরাটে লাগবে না, তা কে বলতে পারে। তাই সব দিক ভেবে চিন্তেই বিধান্‌সভা নির্বাচন আগেভাগে করিয়ে নিতে আগ্রহী রাজ্য নেতৃত্ব।

নিয়ম অনুযায়ী, ২০২২ সালের ডিসেম্বর মাসে গুজরাট বিধানসভার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু রাজ্য স্তরের নেতারা এখন থেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেছে যাতে বিধানসভা ভোটকে নির্ধারিত সময়ের আগেই এগিয়ে আনা যায়। উল্লেখ্য, গুজরাটে পুরসভা ও পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপি ৯০ শতাংশ আসনে জয়লাভ করেছে। গুররাটের ৬টি পুরনিগমই বিজেপির দখলে যায়। পাশাপাশি ৮১টির মধ্যে ৭৫টি পুরসভাতেও বিজেপি জেতে। ২৩১টির মধ্যে ১৯৬টি তালুক পঞ্চায়েত বিজেপির দখলে যায়।

বন্ধ করুন