বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Edible oil prices: কিছুটা স্বস্তি, পাইকারি বাজারে কমল ভোজ্য তেলের দাম
কিছুটা স্বস্তি, পাইকারি বাজারে কমল ভোজ্য তেলের দাম। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য ব্লুমবার্গ)
কিছুটা স্বস্তি, পাইকারি বাজারে কমল ভোজ্য তেলের দাম। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য ব্লুমবার্গ)

Edible oil prices: কিছুটা স্বস্তি, পাইকারি বাজারে কমল ভোজ্য তেলের দাম

  • আন্তর্জাতিক বাজারে কমেছে দাম। দেশীয় বাজারেও পড়েছে চাহিদা।

আন্তর্জাতিক বাজারে কমেছে দাম। দেশীয় বাজারেও পড়েছে চাহিদা। সেই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লির পাইকারি বাজারে প্রায় সবধরনের ভোজ্য তেলের দাম কম থাকল।বাজার সূত্রের খবর, মালয়েশিয়া এক্সচেঞ্জে ০.৬ শতাংশ এবং শিকাগো এক্সচেঞ্জে অপরিশোধিত ভোজ্যতেলের দাম প্রায় এক শতাংশ পড়েছে। 

জয়পুরের মরুধর ট্রেডিং কোম্পানির তরফে জানানো হয়েছে, দেশে ৮৬ লাখ টন সরষে আছে। তার মধ্যে গত বছরের এক লাখ টন সরষে আছে বলে জানানো বলে মরুধর ট্রেডিং কোম্পানির তরফে জানানো হয়েছে। তারইমধ্যে বাজারে জল্পনা ছড়িয়েছে যে তৈলবীজ মজুতের উপর জোর দিচ্ছে সরকার। যদিও সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, তাতে আখেরে কোনও লাভ হবে না।উলটে বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। 

নয়াদিল্লির পাইকারি বাজারে কয়েকটি ভোজ্য তেলের দাম, দেখে নিন -

১) সরষের বীজ - ৭,২২৫ টাকা থেকে ৭,২৭৫ টাকা।

২) সরষের তেল (দাদরি) - প্রতি কুইন্টালের দাম ১৪,২০০ টাকা।

৩) সরষের তেল (কাচ্চি ঘানি) - প্রতি টিনের দাম ২,৪০০ টাকা থেকে ২,৫১০ টাকা

৪) সয়াবিন তেল (মিল ডেলিভারি দিল্লি) - ১৩,৯০০ টাকা। 

করোনাভাইরাসের বাড়বাড়ন্তের মধ্যে থেকে দেশে লাগাতার বাড়ছিল ভোজ্য তেলের দাম। তারইমধ্যে চলতি মাসের গোড়ার দিকে বেঙ্গালুরুতে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন বলেছিলেন, ‘ভোজ্য তেলে (বিদেশের) উপর ভারতের নির্ভরশীলতা অত্যন্ত বেশি। তৈলবীজের উৎপাদনের জন্য দেশে ভোজ্য তেলের দাম বেড়েছে। গত বছর অপরিশোধিত এবং রিফাইন্ড পাম তেলের আমদানি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। এবার তা ফের চালু হয়েছে। তার ফলে ভোজ্য তেলের দাম কম হবে।’

বন্ধ করুন