বাড়ি > ঘরে বাইরে > উত্তর ও দক্ষিণ ভারতে ক্রমশ বাড়ছে বর্ষার পরিমাণে ফারাক, সতর্ক করল IIT খড়্গপুর
আবহাওয়া পরিবর্তনের জেরে ভারতে বর্ষার মেজাজে বদল আসবে, পূর্বাভাস IIT খড়্গপুরের।
আবহাওয়া পরিবর্তনের জেরে ভারতে বর্ষার মেজাজে বদল আসবে, পূর্বাভাস IIT খড়্গপুরের।

উত্তর ও দক্ষিণ ভারতে ক্রমশ বাড়ছে বর্ষার পরিমাণে ফারাক, সতর্ক করল IIT খড়্গপুর

  • দক্ষিণে ক্রমে বাড়বে বৃষ্টির দাপট, আর বর্ষণের হার কমতে থাকবে উত্তর ও মধ্য ভারতে।

চলতি শতকের শেষে আমূল পরিবর্তন হবে ভারতের আবহাওয়ায়। দক্ষিণে ক্রমে বাড়বে বৃষ্টির দাপট, আর বর্ষণের হার কমতে থাকবে উত্তর ও মধ্য ভারতে। সম্প্রতি এমনই পূর্বাভাস করেছেন আইইটি খড়্গপুরের গবেষকরা।

সাম্প্রতিক গবেষণার নেতৃত্বে থাকা আইআইটি খড়্গপুরের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক রাজীব মাইতি জানিয়েছেন, ‘আবহওয়া পরিবর্তনের সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় উত্তর ভারতে প্রতিদিনের হিসেবে গড়ে ২.৭ এমএম বৃষ্টিপাত হবে, যার মধ্যে সর্বোচ্চ বর্ষণ হবে হিমালয়ের পাদদেশে। দক্ষিণ ভারতে প্রতিদিন গড়ে ১৮.৫ এমএম বৃষ্টিপাত দেখা দেবে এবং সবচেয়ে বেশি বর্ষণ হবে পশ্চিমঘাট পর্বতমালায়।’

আইআইটি-র আবহাওয়া পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে যে, আরব সাগর ও দক্ষিণ এশীয় দেশগুলিতে ক্রমশ বর্ষণ বৃদ্ধি পাবে। তালিকায় রয়েছে মায়ানমার, থাইল্যান্ড ও মালয়েশিয়া। 

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, শতাব্দীর শেষ তিন দশক অর্থাৎ ২০৭১ থেকে ২১০০ সালের মধ্যেই আবহাওয়ায় বেশিরভাগ পরিবর্তন দেখা যাবে। প্রায় পাঁচ দশকের আবহাওয়ার গতিবিধি বিশ্লেষণ করে এই তথ্য পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি গবেষকদের। তাঁদের গবেষণাপত্রটি নেচার প্রকাশনার সায়েন্টিফিক রিপোর্টস-এ প্রকাশিত হয়েছে।

অধ্যাপক মাইতি জানিয়েছেন, ‘আমাদের গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ভারত মহাসাগরেরে উপর দিয়ে পূর্বমুখে বয়ে চলা দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বাতাসের গতি পরিবর্তন হবে। তার জেরেই উত্তর ও দক্ষিণ ভারতের মধ্যে আবহাওয়ায় বড়সড় ফারাক দেখা দেবে। এর প্রভাব পড়বে মায়ানমার, থাইল্যান্ড ও মায়েশিয়া সহ একাধিক দেশে।’

আবহাওয়া পরিবর্তনের জেরে বর্ষার মেজাজে বদল আসবে যার প্রভাব পড়বে কৃষিকাজের উপরে। ভারতের জনসংখ্যার প্রায় ৫০% কৃষিজীবী। ফলে তার গুণেগার দিতে হবে তাঁদেরই, জানিয়েছেন আইআইটি খড়্গপুরের ডিরেক্টর বীরেন্দ্র তেওয়ারি।

বন্ধ করুন