বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ৫৪টি বিধানসভা ও একটি লোক সভা উপ-নির্বাচনের দিন ঘোষণা কমিশনের
৩ ও ৭ নভেম্বর দেশের ১০টি রাজ্যের ৫৪টি কেন্দ্রে বিধানসভা নির্বাচন ও একটি লোক সভা কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। 
৩ ও ৭ নভেম্বর দেশের ১০টি রাজ্যের ৫৪টি কেন্দ্রে বিধানসভা নির্বাচন ও একটি লোক সভা কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। 

৫৪টি বিধানসভা ও একটি লোক সভা উপ-নির্বাচনের দিন ঘোষণা কমিশনের

  • ভোট গণনা প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে ১০ নভেম্বর এবং নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হবে ১২ নভেম্বর।

আগামী ৩ ও ৭ নভেম্বর দেশের ১০টি রাজ্যের ৫৪টি কেন্দ্রে বিধানসভা নির্বাচন ও একটি লোক সভা কেন্দ্রে উপনির্বাচনের দিন ঘোষণা করল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। এর মধ্যে ৭ নভেম্বর মণিপুরের দুটি বিধানসভা কেন্দ্র ও বিহারের বাল্মিকী নগরের লোক সভা কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

ভোট গণনা প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে ১০ নভেম্বর এবং নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হবে ১২ নভেম্বর, জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ২৮ অক্টোবর থেকে ৭ নভেম্বর মোট তিন দফায় বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বিহারে। 

২০২১ সালের মে অথবা জুন মাসে বিধানসভার মেয়াদ শেষ হবে বলে অসম, কেরালা, তামিল নাডু ও পশ্চিমবঙ্গের সাতটি কেন্দ্রে নির্বাচন স্থগিত রাখা হয়েছে। 

ওয়াকিবহাল সূত্রে জানা গিয়েছে, কেরালায় দুটি আসন ফাঁকা থাকলেও ২০২১ সালে ওই রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে এর মধ্যে আর উপনির্বাচন করতে রাজি নয় কমিশন। তা ছাড়া, কোভিড অতিমারী ও বন্যায় বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় ব্যয় সঙ্কোচনের স্বার্থেও উপনির্বাচন বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ঠিক হয়েছে, ছত্তিশগড়ের একটি, গুজরাতের ৮টি, হরিয়ানার একটি, ঝাড়খণ্ডের ২টি, গুজরাতের ২টি, মণিপুরের ২টি, নাগাল্যান্ডের ২টি, ওড়িশার ২টি, মধ্য প্রদেশের ২৭টি, তেলাঙ্গনার একটি ও উত্তর প্রদেশের ৭টি বিধানসভা কেন্দ্রে নির্বাচনের আয়োজনকরবে কমিশন। 

গত মার্চ মাসে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া সপার্ষদ কংগ্রেস ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দিলে মধ্য প্রদেশে ২৭টি আসন বিধায়কশূন্য হয়ে যায়। এর জেরে রাজ্যের কংগ্রেস সরকারের পতন হয় এবং শিবরাজ সিং চৌহানের নেতৃত্বে ফের বিজেপি ক্ষমতা দখল করে। 

গত ফেব্রুয়ারি মাসে বৈদ্যনাথ মাহাতো মারা যাওয়ায় বিহারের বাল্মিকী নগর কেন্দ্রটি বিধায়কশূন্য হয়ে পড়ে।

বন্ধ করুন