বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিধানসভা ভোটে কোথায় কত আসন? তথ্য জানতে জম্মু-কাশ্মীরে যাচ্ছে পুনর্বিন্যাস কমিটি
জম্মু ও কাশ্মীরে ভোট করানোর জন্য তোড়জোড় শুরু হল। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
জম্মু ও কাশ্মীরে ভোট করানোর জন্য তোড়জোড় শুরু হল। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

বিধানসভা ভোটে কোথায় কত আসন? তথ্য জানতে জম্মু-কাশ্মীরে যাচ্ছে পুনর্বিন্যাস কমিটি

  • জম্মু ও কাশ্মীরে ভোট করানোর জন্য তোড়জোড় শুরু হল।

জম্মু ও কাশ্মীরে ভোট করানোর জন্য তোড়জোড় শুরু হল। তারই অঙ্গ হিসেবে আগামী ৬ জুলাই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে যাবে আসন পুনর্বিন্যাস কমিশন। যাচ্ছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুশীল চন্দ্রও। আগামী ৯ জুলাইয়ের মধ্যে রাজনৈতিক দল, সরকারি আধিকারিক, জনপ্রতিনিধি-সহ সবপক্ষের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করবে কমিশন।

২০১৯ সালে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর থেকে জম্মু-কাশ্মীরের আসন পুনর্বিন্যাস নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। তা নিয়ে বৈঠক করেছেন নির্বাচন কমিশন এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কর্তারা। তারই রেশ ধরে বুধবার দিল্লিতে বৈঠক করে নির্বাচন কমিশন। সূত্রের খবর, আঞ্চলিক এবং জাতীয় রাজনীতিবিদদের সঙ্গে কখন সর্বদলীয় বৈঠক হবে, সে বিষয়ে আলোচনা করেছেন কমিশনের কর্তারা। কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মর্যাদা পাওয়ার পর জম্মু ও কাশ্মীরের প্রথম বিধানসভা ভোটের জন্য কমিশনের হাতে মোটামুটি ন'মাস আছে। তার আগেই কমিশন আসন পুনর্বিন্যাসের কাজ সেরে ফেলতে চাইছে।

নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে গিয়ে বিধানসভা এবং লোকসভা আসন পুনর্বিন্যাসের জন্য সরাসরি বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করা হবে। পুনর্বিন্যাস কমিশনের চেয়ারম্যান তথা অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি রঞ্জনা প্রকাশ দেশাই এবং মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের পৌরহিত্যে কমিশনের বৈঠকে সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কমিশনের মুখপাত্র বলেন, ‘কমিশনের আশা যে সবপক্ষের প্রতিনিধিরা এই কাজে সহযোগিতা করবেন এবং মূল্যবান পরামর্শ দেবেন, যাতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আসনের পুনর্বিন্যাসের কাজ শেষ হবে।’

এমনিতে বিশেষ মর্যাদা লোপের আগে জম্মু ও কাশ্মীরে ক্ষমতার ভরকেন্দ্র ছিল মূলত কাশ্মীর। উপত্যকায় যে দলের ঝুলিতে বেশি আসন যেত, সেই দলের থাকত ক্ষমতা। কারণ কাশ্মীর অঞ্চলে ছিল ৪৬ টি বিধানসভা আসন। ৩৭ টি বিধানসভা আসন ছিল জম্মুতে। বিরোধীদের দাবি, এবার ক্ষমতার ভরকেন্দ্র জম্মুতে নিয়ে আসার চেষ্টা করছে বিজেপি। এমনিতে ২০১৯ সালে জম্মু ও কাশ্মীর পুনর্গঠন আইন পাশের সময় কেন্দ্র জানিয়েছিল, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিধানসভা আসনের সংখ্যা ১০৭ থেকে বাড়িয়ে ১১৪ করা হবে। পাকিস্তান-অধ্যুষিত কাশ্মীরের মধ্যে থাকার জন্য ২৪ টি আসন ফাঁকা রাখা হয়।

বন্ধ করুন