বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাংলাদেশে লকডাউন আরও ১ সপ্তাহ বাড়ানোর সুপারিশ বিশেষজ্ঞ কমিটির
বাংলাদেশে চলছে লকডাউন। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
বাংলাদেশে চলছে লকডাউন। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)

বাংলাদেশে লকডাউন আরও ১ সপ্তাহ বাড়ানোর সুপারিশ বিশেষজ্ঞ কমিটির

রবিবার পরামর্শদাতা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মহম্মদ সাহিদুল্লা জানান, ‘‌বিধিনিষেধ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর প্রস্তাবই সরকারকে দেওয়া হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে বাংলাদেশে বিধিনিষেধ আরও ১ সপ্তাহ বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এর আগে গত ১ জুলাই এক সপ্তাহের জন্য বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। সেই সময়সীমা আগামী ৭ জুলাই শেষ হওয়ার কথা। এখন দেখার করোনা সংক্রান্ত পরামর্শদাতা কমিটির সুপারিশে সরকার সিলমোহর দেয় কিনা।

রবিবার পরামর্শদাতা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মহম্মদ সাহিদুল্লা জানান, ‘‌বিধিনিষেধ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর প্রস্তাবই সরকারকে দেওয়া হয়েছে। দেশের পরিস্থিতি বিচার বিশ্লেষণ করে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’‌ যদি প্রশাসন সূত্রে খবর, সরকারের তরফে এখনই এই বিষয়ে কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। সরকারের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, এখনও হাতে সময় আছে। সরকার এই বিষয়ে আগামী ৬ জুলাই জানাবে। কমিটির তরফে যেদিন এই বিধিনিষেধের সময়সীমা আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর সুপারিশ করা হয়েছে, সেইদিনই বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসার পর গত ৫ এপ্রিল থেকে ধাপে ধাপে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে সরকার। স্থানীয় প্রশাসন তাঁদের বিভিন্ন এলাকায় বিধিনিষেধ আরোপ করে। এরপরও সংক্রমণের মাত্রা না কমায় সরকারের তরফে সারা দেশে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। গত ২৮ জুন সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়েছিল, ১ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত রাত ১২টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ করা হল। সরকারের তরফে তখন জানানো হয়েছিল, প্রয়োজনে আরও ১ সপ্তাহ বিধিনিষেধ আরোপ করা হতে পারে। সেই বিধিনিষেধের আওতায় সরকারি, বেসরকারি অফিস, গণপরিবহণ, দোকানপাট, শপিং মল যেমন বন্ধ রয়েছে, তেমনি সামাজিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও রাজনৈতিক সমাবেশ বন্ধ আছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কারওরই বাইরে যাওয়ার ব্যাপারে বিধিনিষেধ জারি করেছে সরকার।

বন্ধ করুন