বাড়ি > ঘরে বাইরে > কমছে বিজ্ঞাপন, তড়িঘড়ি হেট স্পিচ সংক্রান্ত পোস্ট ও অ্যাড নীতি বদলাল ফেসবুক
মার্ক জুকারবার্গ (AP)
মার্ক জুকারবার্গ (AP)

কমছে বিজ্ঞাপন, তড়িঘড়ি হেট স্পিচ সংক্রান্ত পোস্ট ও অ্যাড নীতি বদলাল ফেসবুক

সাত শতাংশ কমেছে ফেসবুকের শেয়ারের দাম

স্টপ হেট ফর প্রফিট ক্যাম্পেনের জেরে প্রচুর বিজ্ঞাপন হারিয়েছে ফেসবুক। এবার তাই দ্রুত নিজেদের নিয়ম বদলাল সংস্থা। কর্ণধার মার্ক জুকারবার্গ বলেন যে তারা এমন বিজ্ঞাপন নেবেন না যেটা বৈষম্যমূলক বা হিংসা উস্কে দেয়। একই সঙ্গে যে সব পোস্ট খবর হতে পারে, সেগুলি নিয়ে যদি ফেসবুকের আপত্তি কিছু থাকে, তাহলে লেবেল করে দেওয়া হবে সেটি। 

আগেই টুইটার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের টুইট নিয়ে এরকম নীতি নিয়েছে। তখন জুকারবার্গ বলেছিলেন যে তারা এরকম পথে যাবেন না। বিজ্ঞাপন নিয়েও একবগ্গা ছিলেন তিনি। কিন্তু এরপর ঘরে বাইরে চাপের মুখে পড়ে ফেসবুক। প্রচুর কর্মী সংস্থার এই নীতির বিরোধিতা করেন। জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর বাইরে থেকে অ্যাডের ওপরও চাপ পড়ে। 

এরপরেই কোর্স কারেকশনের পথে যায় ফেসবুক। জুকারবার্গ বলেন যে ফেসবুক এমন বিজ্ঞাপন নিষিদ্ধ করবে যেগুলি বলে কোনও জাতি, ধর্ম, যৌন পছন্দ, অভিবাসন স্ট্যাটাস ইত্যাদির ওপর ভিত্তি করে কেউ ক্ষতিকারক হতে পারে। 

ফেসবুকের শেয়ার শুক্রবার আট শতাংশ কমেছে। ইউনিলিভার বলেছে তারা আপাতত সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাড দেবে না মার্কিন নির্বাচন অবধি। 

হেট স্পিচ চলতে থাকলে অ্যাড বন্ধ করার কথা বলেছে ৯০টি সংস্থা। আপাতত ৩০ দিনের জন্য অ্যাড স্থগিত করেছে কোকাকোলা। 

মার্ক জুকারবার্গ মূলত চারটি পয়েন্ট তুলে ধরেছেন তাঁর পোস্টে। প্রথম দুটি মূলত মার্কিন নির্বাচন নিয়ে। নভেম্বরে ভোট নিয়ে করোনার মধ্যেও ফেসবুক কীভাবে তথ্য পরিবেশনা করবে সেটা জানিয়েছেন তিনি। অন্যটা হল যাতে সবাই ভোট দিতে পারেন, সেই জন্য ফেসবুক কী কী করবে, সেটাও বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেছেন তিনি। 

তৃতীয় বিষয়টি হল কী কী রকমের বিজ্ঞাপন নেবে না ফেসবুক। যাতে কোনও রকমের বৈষম্য বিজ্ঞাপিত না হয়, সেটির দিকে খেয়াল রাখবে সংস্থা। 

চতুর্থ হল মূলত রাজনৈতিক পোস্ট সম্পর্কিত। জুকারবার্গ জানিয়েছেন যে সব পোস্ট তাদের কমিউনিটি গাইডলাইনস ভঙ্গ করে, কিন্তু সেগুলি গুরুত্বপূর্ণ খবরও বটে, সেগুলি থাকতে দেবে ফেসবুক। কিন্তু সেক্ষেত্রে লেবেল করে দেওয়া হবে পোস্টগুলি। তবে কেউ যদি হিংসায় উস্কানি দেয় বা ভোট দিতে লোকজনকে বিরত করতে চায়, তাহলে সেখানে নিউজ ভ্যালু দেখা হবে না। সোজা ডিলিট করা হবে সেই পোস্ট। এই নিয়ম সব রাজনীতিবিদের জন্যই প্রযোজ্য বলে জানান ফেসবুক কর্ণধার। 

বন্ধ করুন