বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রাজ্যের সরকারি পোর্টাল হ্যাক করেই জাল বার্থ সার্টিফিকেট তৈরির অভিযোগ!
ছবি : সংগৃহিত (Collected)
ছবি : সংগৃহিত (Collected)

রাজ্যের সরকারি পোর্টাল হ্যাক করেই জাল বার্থ সার্টিফিকেট তৈরির অভিযোগ!

  • এ বিষয়ে জুলাই মাসের শেষে সল্টলেক সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগও দায়ের করা হয়।

হ্যাক করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে জন্ম ও মৃত্যু নথিভুক্তিকরণের সরকারি পোর্টাল। আর তার মাধ্যমেই তৈরি করা হয়েছে বহু জাল বার্থ সার্টিফিকেট। অভিযোগ খোদ রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরেরই। এ বিষয়ে জুলাই মাসের শেষে সল্টলেক সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগও দায়ের করা হয়।

স্বাস্থ্য দফতরের আশঙ্কা, গত প্রায় তিন মাস ধরে হ্যাকিং চলেছে। বেরিয়ে আসছে ভুয়ো সার্টিফিকেট। এদিকে সরকারি ওয়েবসাইট থেকেই হ্যাক করে সেটা তৈরি করা হচ্ছে। তাই সেই সার্টিফিকেটগুলি ভুয়ো কিনা, তা ধরতে পারাও ভীষণ কঠিন।

শুধু তাই নয়, দিল্লিতে রেজিস্ট্রার জেনারেল অ্যান্ড সেন্সাস কমিশনারের দফতরে চিঠি দিয়েও গোটা পরিস্থিতির কথা জানায় স্বাস্থ্য দফতর। ইতিমধ্যেই সেখানকার আধিকারিকরা তদন্ত শুরু করেছেন।

কোথায় বানানো হয়েছে এই ভুয়ো বার্থ সার্টিফিকেটগুলি?

মালদহ, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, কোচবিহার ও জলপাইগুড়ি জেলায় এই ধরণের ভুয়ো শংসাপত্র বের করা হয়েছে বলে অভিযোগ স্বাস্থ্য দফতরের। তবে ঠিক কতগুলি এরকম জাল বার্থ সার্টিফিকেট আছে, সে বিষয়ে তাঁরা নিশ্চিত নন বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা।

আরও বেশ কিছু রাজ্যেই এমনটা হওয়ার অভিযোগ

পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী বলেন, 'শোনা যাচ্ছে, শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয়, আরও কয়েকটি রা্যে এরকম হয়েছে।' এর সঙ্গে দেশের নিরাপত্তা জড়িয়ে বলে মত প্রকাশ করেন তিনি।

কিন্তু এই ভুয়ো বার্থ সার্টিফিকেট দিয়ে কী করা হতে পারে?

অনেক শিশুরই প্রাতিষ্ঠানিক প্রসব হয় না। তাদের ক্ষেত্রে এমনটা তৈরি করা হতে পারে। আবার অনেকে অন্য দেশ থেকে বৈধ নথি ছাড়াই ভারতে অনুপ্রবেশ করেছে। তারাও এভাবে বার্থ সার্টিফিকেট বের করে নিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন