বাড়ি > ঘরে বাইরে > কোভিড বৈঠকে সিএমও-কে ‘গাধা’ ডেকে ‘চামড়া গুটিয়ে নেওয়ার’ হুমকি জেলাশাসকের
কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠকে যুযুধান দুই পদস্থ আধিকারিক। (প্রতীকী ছবি)
কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠকে যুযুধান দুই পদস্থ আধিকারিক। (প্রতীকী ছবি)

কোভিড বৈঠকে সিএমও-কে ‘গাধা’ ডেকে ‘চামড়া গুটিয়ে নেওয়ার’ হুমকি জেলাশাসকের

  • প্রশাসনিক বৈঠকের মাঝে দুই আমলার বাক-বিতণ্ডায় যথেচ্ছ বইল অশ্রাব্য গালাগালির স্রোত, হল হাতাহাতিও।

কোভিড নিয়ন্ত্রণ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকের মাঝে মুখ্য মেডিক্যাল আধিকারিককে ‘গাধা’ সম্বোধন করে চামড়া গুটিয়ে দেওয়ার হুমকি দিলেন জেলাশাসক। 

উত্তর প্রদেশের রায় বরেলিতে প্রশাসনিক বৈঠকের মাঝে দুই আমলার বাক-বিতণ্ডায় যথেচ্ছ বইল অশ্রাব্য গালাগালির স্রোত, হল হাতাহাতিও। শেষ পর্যন্ত বৈঠক ছেড়ে চলে গেলেন অপমানিত সিএমও। 

শনিবার তিনি ঘটনার কথা জানিয়ে জেলাশাসকের অভব্য আচরণের বিহিত করতে আর্জি জানিয়ে চিকিৎসা, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের অধিকর্তাকে চিঠি লিখলেন সিএমও। সেই চিঠি সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস হলে বিষয়টি জনসমক্ষে এসেছে। ঘটনায় যথাযথ পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত প্রান্তিক চিকিৎসা পরিষেবা সংঘের বৈঠকে।

জানা গিয়েছে, গত শনিবার সন্ধ্যায় জেলার বেহাল স্বাস্থ্য পরিষেবা ও কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলা নিয়ে বৈঠক ডেকেছিলেন জেলাশাসক বৈভব শ্রীবাস্তব। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জেলা স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা। প্রধান স্বাস্থ্য আধিকারিক (সিএমও) চিকিৎসক সঞ্জয় শর্মা তাঁর চিঠিতে জানিয়েছেন, বৈঠকে চিকিৎসা কেন্দ্রে চিকিৎসকদের গরহাজিরার বিষয়টি ওঠে। সেই সময় জনৈক চিকিৎসক মনোজ শুক্লার কর্মস্থলে অনুপস্থিতি নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেন জেলাশাসক। 

তাঁকে জানানো হয়, ওই চিকিৎসকের স্ত্রী ক্যানসার রোগী এবং তাঁর নিয়মিত ডায়ালিসিস চলছে। এই কারণে তাঁকে ফোনেই কাজ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল। এই ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট না হয়ে আচমকা গালাগালি দিতে শুরু করেন জেলাশাসক, অভিযোগ সিএমও-র। তাঁকে ‘গাধা’ সম্বোধন করার পরে বৈঠকে সকলের সামনেই মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের চাম়ড়া গুটিয়ে নেবেন বলে হুমকি দেন বলে চিঠিতে জানানো হয়েছে।

সিএমও-র দাবি, জেলাশাসকের এই অভব্য আচরণে করোনা যোদ্ধাদের মনোবল ভেঙে পড়েছে। 

এ দিকে শনিবারের ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য তৈরি হলে ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামে প্রশাসন। প্রান্তিক চিকিৎসা সেবা সংঘের অভ্যন্তরীণ বৈঠকে সাব্যস্ত হয়, জেলাশাস উচ্চারিত শব্দগুচ্ছ কোনও মতেই গালিগালাজ শ্রেণিভুক্ত নয়। সেই সঙ্গে জেলাশাসক ও সিএমও-র মধ্যে বিবাদ মেটানোর চেষ্টাও করে সংঘ। শোনা গিয়েছে, শেষ পর্যন্ত সেই চেষ্টা কিছুটা ফলপ্রসূ হয়েছে। যদিও এ ব্যাপারে জেলাশাসকের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা বিফল হয়েছে।

বন্ধ করুন