বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > হিংসা থামার নাম নেই বাংলাদেশে, এবার সংখ্যালঘুদের বাড়িতে আগুন রংপুরের পীরগঞ্জে
প্রতীকী ছবি সৌজন্য টুইটার @iskcon
প্রতীকী ছবি সৌজন্য টুইটার @iskcon

হিংসা থামার নাম নেই বাংলাদেশে, এবার সংখ্যালঘুদের বাড়িতে আগুন রংপুরের পীরগঞ্জে

  • বাংলাদেশের উত্তর প্রান্তে অবস্থিত রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় সংখ্যালঘুদের ২০টি বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হল।

বিগত বেশ কয়েকদিন ধরেই অশান্ত বাংলাদেশ। সাম্প্রদায়িক এই হিংসায় এখনও প্রাণ হারিয়েছেন অনেকেই। এই পরিস্থিতিতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা কড়া করা হয়েছে বাংলাদেশ সরকারের তরফে। তবে তাতেও হিংসার ঘটনা থামছে না সেদেশে। এবার বাংলাদেশের উত্তর প্রান্তে অবস্থিত রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় সংখ্যালঘুদের ২০টি বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হল।

বাংলাদেশি সংবাদপত্র প্রথম আলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ফেসবুকে এক সংখ্যালঘু ইসলাম ধর্মের অবমাননা করে পোস্ট করছে বলে রটে যায়। এই কথিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে পীরগঞ্জের রামনাথপুর ইউনিয়নের মাঝিপাড়া এলাকায় রবিবার রাত দশটা নাগাদ বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী গিয়ে এলাকার সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা চালায়। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় ২০টি বাড়িতে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে বলে জানা যায়।

এদিকে গত কয়েকদিনের হিংসার প্রেক্ষিতে ফেনী এবং নোয়াখালিতে নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে। উল্লেখ্য, সংখ্যালঘুদের উফর হামলা, পুজো মণ্ডপে ভাঙচুরের প্রতিবাদে পুজো উদযাপন কমিটির তরফে মানব বন্ধন কর্মসূচি পালন করার সময়ে ফেনীতে প্রতিবাদীদের উপর ঢিল ছোড়া হয়। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফেনীতে সংঘর্ষ হয়। পরে সেখানে একটি মন্দির ও একটি আশ্রমে এবং বেশ কিছু দোকানে হামলার ঘটনা ঘটে।

শুধু ফেনী নয়, পরপর সংখ্যালঘুদের উপর এই হিংসার ঘটনার পর থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে ওই দেশের সরকারের দাবি করা হয়। বিজিবি বাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছে ২২ জেলায়। পাশাপাশি দোষীদের কড়া শাস্তি দেওয়ার বার্তাও দিয়েছেন সেদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যদিকে ভারতেও এই নিয়ে হইচই পড়েছে। অনেকেই এর প্রতিবাদ করেছেন। তবে পরিস্থিতি ক্রমেই আরও গুরুতর হয়ে যাচ্ছে।

 

বন্ধ করুন