বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ডাক্তারবাবু পুজোয় ব্যস্ত! চিকিৎসা না পেয়ে হাসপাতালেই মারা গেল ফুটফুটে শিশু
সরকারি হাসপাতালে মারা গেল শিশু সন্তান। প্রতীকী ছবি. (AP) (AP)

ডাক্তারবাবু পুজোয় ব্যস্ত! চিকিৎসা না পেয়ে হাসপাতালেই মারা গেল ফুটফুটে শিশু

  • জবলপুরের জেলা কালেক্টর ইলায়ারাজা টি জানিয়েছেন, চিকিৎসক ডিউটিতে ছিলেন। ওই পরিবার মৃত অবস্থাতেই শিশুটিকে নিয়ে এসেছিলেন। চিকিৎসক বলেছিলেন শিশুটির মৃত্যু হয়েছে, কিন্তু তাঁরা মানতে চাননি। ওই শিশুর একটি পায়ে পোড়ার দাগ ছিল। সেখান থেকেও সংক্রমণ ছড়িয়েছিল রাস্তায়।

শ্রুতি তোমার

চিকিৎসক বাড়ির পুজোয় ব্যস্ত। চিকিৎসা না পেয়ে মায়ের কোলেই মারা গেল ৫ বছরের ফুটফুটে শিশু। মধ্যপ্রদেশের ভূপালে স্বাস্থ্য ব্যবস্থার করুণ ছবি আরও একবার সামনে এল। সূত্রের খবর, বর্গির আরোগ্য কেন্দ্রতে তিনহাটা গ্রামের বাসিন্দা সঞ্জয় পাণ্ডে ও তাঁর স্ত্রী বুধবার তাঁর অসুস্থ পুত্র ঋষিকে নিয়ে হাসপাতালে গিয়েছিলেন। ওই শিশুর ডায়ারিয়া হয়েছিল।

দীর্ঘক্ষণ হাসপাতালে বসেছিলেন তাঁরা। পরিবার সূত্রে খবর, এরপর নার্স জানিয়ে দেন ডাক্তারবাবু বাড়ি গিয়েছেন। এরপর ঘণ্টার পর ঘণ্টা চিকিৎসকের জন্য তাঁরা অপেক্ষা করতে শুরু করেন। ঋষির মামা পবন কুমার জানিয়েছেন, আমার ভাগ্না বিনা চিকিৎসায় মারা গিয়েছে। ডাঃ লোকেশ বাড়ির পুজোয় ব্যস্ত ছিলেন। কারণ তার স্ত্রী নাকি উপোস করেছিলেন। আমার ভাগ্নাকে একবারও দেখতে এলেন না। চিকিৎসা পরিষেবা থাকলে আমার ভাগ্না বেঁচে যেত।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে ওই পরিবারের করুণ আর্তি। মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি কমল নাথ বলেন, অত্যন্ত বেদনাদায়ক ঘটনা। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ করা দরকার।

তবে জবলপুরের জেলা কালেক্টর ইলায়ারাজা টি জানিয়েছেন, চিকিৎসক ডিউটিতে ছিলেন। ওই পরিবার মৃত অবস্থাতেই শিশুটিকে নিয়ে এসেছিলেন। চিকিৎসক বলেছিলেন শিশুটির মৃত্যু হয়েছে, কিন্তু তাঁরা মানতে চাননি। ওই শিশুর একটি পায়ে পোড়ার দাগ ছিল। সেখান থেকেও সংক্রমণ ছড়িয়েছিল রাস্তায়। তারা স্থানীয়স্তরে চিকিৎসা করাচ্ছিলেন। পরে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তেই হাসপাতালে আসেন। তবে এই ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। 

বন্ধ করুন