বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Fodder Scam: ফের পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় দোষী সাব্যস্ত লালুপ্রসাদ যাদব, অভিযোগ ছিল দোরান্দা ট্রেজারি ইস্যুতে
পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির পঞ্চম মামলায় দোষী সাব্যস্ত লালুপ্রসাদ যাদব

Fodder Scam: ফের পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় দোষী সাব্যস্ত লালুপ্রসাদ যাদব, অভিযোগ ছিল দোরান্দা ট্রেজারি ইস্যুতে

  • ফের পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলেন, বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা আরজেডি সুপ্রিমো লালুপ্রসাদ যাদব।

ফের পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলেন, বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা আরজেডি সুপ্রিমো লালুপ্রসাদ যাদব। এই নিয়ে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি ইস্যুতে পঞ্চমবার দোষী সাব্যস্ত হলেন তিনি। উল্লেখ্য, দোরান্দা ট্রেজারি মামলায় ১৩৯.৩৫ কোটি টাকা অবৈধভাবে তুলে নেওয়া ঘিরে মামলা ছিল বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে। এই মামলায় লালুপ্রসাদ যাদব সহ ৭৫ জন অভিযুক্ত ছিলেন। অভিযুক্তদের মধ্যে ২৪ জনকে এই মামলায় অব্যহতি দেওয়া হয়। তবে দোষী সাব্যস্ত হন আরজেডি সুপ্রিমো। উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেছিলেন যে, ফের একবার নির্বাচনী রাজনীতিতে ফিরতে তিনি আগ্রহী। আত্মবিশ্বাসের সুরে তিনি বলেন, তিনি নির্বাচনী রাজনীতিতে ফিরতে চান ও ভোটে জিতে ফের একবার সংসদে প্রবেশ করতে চান। তবে তারপরই আসে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় আদালতের নির্দেশ।

মঙ্গলবার রাঁচিতে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে শুনানি হয়েছে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির এই মামলার। সেখানে লালুপ্রসাদ যাদবের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি অবৈধভাবে দোরান্দা ট্রেজারি থেকে ১৩৯.৩৫ কোটি টাকা তুলে নিয়ে ছিলেন। এই অভিযোগ পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলার আওতায় দায়ের হয়েছিল। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি ইস্যুতে পর পর চলা মামলায় এই নিয়ে পঞ্চম মামলায় অভিযুক্ত হন লালু। ইতিমধ্যেই পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির ৪ টি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন লালুপ্রসাদ। এরপর পঞ্চম মামলাতেও তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি দোষী সাব্যস্ত হলেন। প্রসঙ্গত, জানা গিয়েছে গত কয়েক মাস ধরে শারীরিক অসুস্থতার জন্য তিনি দিল্লিতে মেয়ে মিসা ভারতীর বাড়িতে ছিলেন। দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর লালু প্রসাদকে নির্বাচনী রাজনীতি থেকেও সরে দাঁড়াতে হয় আইনি নির্দেশ অনুযায়ী। তারপর থেকেই বিহারের রাজনীতিতে সেভাবে উজ্জ্বল ভূমিকায় দেখা যায়নি লালুকে।

 

 

উল্লেখ্য, ধীরে ধীরে বিহারের রাজনীতিতে নিজের উপস্থিতি জানান দেওয়ার চেষ্টায় বেশ কয়েকদিন ধরে লালুপ্রসাদ ছিলেন বলে জানা যায়। মঙ্গলবার তাঁকে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় সশরীরে আদালতে হাজিরার নির্দেশ দেয় সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত। এরপরই রবিবার রাঁচিতে আসেন লালু। আর আজ ছিল সেই মামলার শুনানি। উল্লেখ্য, ২০২৪ সালে লোকসভা নির্বাচনের আগে, পর পর পশুখাদ্য মামলায় আরজেডি সুপ্রিমোর এভাবে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার ঘটনা যে তাঁর দলকে খুব একটা সুখকর পরিস্থিতি দিতে পারে, তা মনে করছেন না বিশেষজ্ঞরা। সেক্ষেত্রে এই মামলার প্রভাব বিহারের রাজনীতিতে কতটা পড়ে সেদিকে তাকিয়ে গোবলয়ের রাজনীতি।

বন্ধ করুন