বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > লোকারণ্যে নয়, অতিমারিতে ভিড় ছাড়াই রথযাত্রা পুরীতে, রথ টানলেন ১৫০০ সেবাইত
পুরীর রথযাত্রা (ফাইল ছবি)
পুরীর রথযাত্রা (ফাইল ছবি)

লোকারণ্যে নয়, অতিমারিতে ভিড় ছাড়াই রথযাত্রা পুরীতে, রথ টানলেন ১৫০০ সেবাইত

  • ওড়িশার জগন্নাথ মন্দিরের ইতিহাসে এনিয়ে দ্বিতীয়বার ভিড় ছাড়াই রথযাত্রা হচ্ছে পুরীতে। কেবলমাত্র সেবাইতরা টানলেন রথের রশি।

অতিমারি পরিস্থিতিতে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে সাধারণ মানুষের ভিড় ছাড়়াই রথযাত্রা শুরু হল পুরীতে। গত বছরের পর ওড়িশার জগন্নাথ মন্দিরের ইতিহাসে এনিয়ে দ্বিতীয়বার ভিড় ছাড়াই রথযাত্রা হচ্ছে পুরীতে। কেবলমাত্র সেবাইতরা টানলেন রথের রশি। জয় জগন্নাথ ধ্বনিতে মুখরিত হল সৈকত শহর। পুরীর প্রাচীন মন্দির থেকে জগন্নাথ, বলরাম ও সুভদ্রাকে যাবতীয় রীতি মেনে চাপানো হয়ে সুসজ্জিত রথে। শঙ্খধ্বনি, বাদ্যযন্ত্রের আওয়াজের মধ্যেই তালে তালে বিগ্রহদের তোলা হয় রথে। জগন্নাথ মন্দিরের মুখ্য প্রশাসক ডঃ কৃষান কুমার বলেন, বিশেষ রীতি পাহন্ডি বিজের আগে যাবতীয় আচার অনুষ্ঠান হয়েছে। আরতি, অবকাশ, রসা হোম, সূর্য্য ও দ্বারপালা পুজো, মঙ্গল অর্পন সহ বিভিন্ন রীতি মন্দিরের মধ্যে পালন করা হয়েছে।

 তিনটি দিব্যরথ নন্দীঘোষ, তালধ্বজ ও দর্পদলনকে প্রায় দেড় হাজার সেবাইত টেনে নিয়ে যান। তবে সমস্ত সেবাইতকেই করোনা পরীক্ষা করানো হয়েছিল। পাশাপাশি পুরী গোবর্ধনপীঠের জগৎগুরু শঙ্করাচার্য স্বামী নিশ্চলানন্দ সরস্বতী মহারাজ রথের উদ্দ্যেশে তাঁর অর্ঘ্য নিবেদন করেন। প্রসঙ্গত রথযাত্রা ওড়িশার অন্যতম বড় উৎসব। প্রতি বছর পুরীর জগন্নাথদেবের মন্দির থেকে রথ গুন্ডিচা মন্দিরে মাসির বাড়িতে যায়। প্রায় আড়াই কিলোমিটার এই রাস্তার ধারে লক্ষ লক্ষ মানুষ জগন্নাথ দর্শনের জন্য ভিড় করেন। এই রথের সময়তেই সমস্ত ধর্মের মানুষ জগন্নাথ দর্শনের সুযোগ পান। অন্য সময় হিন্দু ছাড়া অন্য ধর্মের কারোর মন্দিরে প্রবেশের অনুমতি নেই। এদিন প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতিও টুইট করে দেশবাসীকে রথের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

 

বন্ধ করুন