বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘‌গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেস প্রান্তিক শক্তি’‌, মমতার সফরের আগে কটাক্ষ চিদম্বরমের
প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম (ফাইল ছবি, সৌজন্য মিন্ট)
প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম (ফাইল ছবি, সৌজন্য মিন্ট)

‘‌গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেস প্রান্তিক শক্তি’‌, মমতার সফরের আগে কটাক্ষ চিদম্বরমের

  • মিশন ২০২৪–কে সামনে রেখে এখন এগোচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেখানে গোয়া, মেঘালয় এবং ত্রিপুরাকে টার্গেট করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল।

উত্তরবঙ্গ থেকেই গোয়া যাওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আর এই গোয়া সফরের আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্দেশ্যে কটাক্ষ করল কংগ্রেস। আরবসাগরের তীরবর্তী রাজ্যে সরকার গঠনের কথা ভাবছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেখানে গোয়ায় এআইসিসি’‌র প্রধান পর্যবেক্ষক তথা বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম বলেন, ‘‌গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেস প্রান্তিক শক্তি। ওদের কোনও কর্মী বা সংগঠন নেই।’‌ মমতার সফরের আগে এই মন্তব্য বেশ তাৎপর্যপূর্ণ।

মিশন ২০২৪–কে সামনে রেখে এখন এগোচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেখানে গোয়া, মেঘালয় এবং ত্রিপুরাকে টার্গেট করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল। একুশের নির্বাচনে ব্যাপক সাফল্যের পর এই রাজ্যগুলিতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেখানে সংগঠন বাড়ানোর কাজে উঠে পড়ে লেগেছে তৃণমূল কংগ্রেস। কংগ্রেস, আপ–সহ একাধিক দলের নেতারা যোগ দিয়েছেন ঘাসফুলে। গোয়া জুড়ে সেজে উঠেছে তৃণমূল কংগ্রেসের পোস্টার, ব্যানারে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রচারে যাচ্ছেন গোয়াতেই। সেখানে পি চিদম্বরমের মন্তব্যে বিজেপি বিরোধী জোটে প্রভাব পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

ঠিক কী বলেছেন চিদম্বরম?‌ এদিন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘‌গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রবেশ অনেকটা উপর থেকে চাপিয়ে দেওয়ার মতো। যেটা বাংলা থেকে পরিচালিত। আমি জানি না কেন তৃণমূল কংগ্রেস গোয়ার রাজনীতিতে প্রবেশ করে দলত্যাগে উৎসাহ দিচ্ছে। লুইজিনহো ফেলারিও’‌র জন্য আমার খারাপ লাগছে। ওর বিধানসভা কেন্দ্রের মানুষও এই দলত্যাগের বিরোধিতা করছে। তাই কোনও প্রভাব পড়বে না। আমরা ওই কেন্দ্রে জিতব।’‌

এই মন্তব্য এতক্ষণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কানে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। যার উত্তর মিলবে গোয়ার মাটিতে পা রেখেই বলে সূত্রের খবর। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, তিন মাস পর গোয়ায় নির্বাচন। সেখানে সরকার গড়বে তৃণমূল কংগ্রেস। সেখানে চিদম্বরমের কথায়, ‘‌আমার মনে হয় গোয়ায় কংগ্রেসই বিজেপিকে হারানোর লড়াইয়ে এগিয়ে রয়েছে। আমরা আত্মবিশ্বাসী কংগ্রেস একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসব। ছোটখাটো কোনও দল চাইলে আমরা তাঁদের কিছু আসন ছাড়তে পারি।’‌ এই মন্তব্য তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে অপমানজনক বলেই মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন