বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রিলায়েন্স-এর সঙ্গে লেনদেনে স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে ফিউচার গ্রুপ
ধবার দিল্লি হাই কোর্টে আবেদন জানাল কিশোর বিয়ানির ফিউচার রিটেল।
ধবার দিল্লি হাই কোর্টে আবেদন জানাল কিশোর বিয়ানির ফিউচার রিটেল।

রিলায়েন্স-এর সঙ্গে লেনদেনে স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে ফিউচার গ্রুপ

  • রিলায়েন্স রিটেল সংস্থার সঙ্গে ২৪,৭১৩ কোটি টাকার চুক্তির উপরে স্থগিতাদেশ জারি করা রায়ের বিরুদ্ধে দিল্লি হাই কোর্টে আবেদন জানাল কিশোর বিয়ানির ফিউচার রিটেল।

রিলায়েন্স রিটেল সংস্থার সঙ্গে ২৪,৭১৩ কোটি টাকার চুক্তির উপরে স্থগিতাদেশ জারি করা রায়ের বিরুদ্ধে বুধবার দিল্লি হাই কোর্টে আবেদন জানাল কিশোর বিয়ানির ফিউচার রিটেল। মার্কিন ই-কমার্স সংস্থা অ্যামাজন এই চুক্তির বিরুদ্ধে আগেই তীব্র আপত্তি জানিয়েছিল।

বৃহস্পতিবার হাই কোর্টে মামলাটির শুনানি শুরু হয়, জানিয়েছেন ঘটনা সম্পর্কে ওয়াকিবহাল এক আইনজীবী। 

মঙ্গলবার বিচারপতি জে আর মিধা জানিয়েছিলেন, অ্যামাজন-এর অধিকার সুরক্ষিত করতে অন্তর্বর্তী নির্দেশ জারি হওয়ায় তিনি সন্তুষ্ট। ওই নির্দেশে মুকেশ ধিরুভাই আম্বানি গ্রুপের সঙ্গে ফিউচার গ্রুপের লেনদেন সম্পূর্ণ করার বিষয়ে কোনও পদক্ষেপের উপরে স্থহিতাদেশ আরোপ করা হয়েছে। 

অ্যামাজন ডটকম এনভি ইনভেস্টমেন্ট হোল্ডিংস এলএলসি তাদের আবেদনে এফসিপিএত ও এফআরএল কর্তা বিয়ানিদের এবং সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে আদালত নিয়োজিত মধ্যস্থতাকারীর নির্দেশ ‘ইচ্ছাকৃত অমান্য করার’ জন্য কারাদণ্ডের আবেদনও জানিয়েছে। 

টানা চার দিন শুনানির পরে মঙ্গলবার মুখ্য আবেদনের উপরে তার রায় স্থগিত রেখেছে হাই কোর্ট। সেই সঙ্গে মধ্যস্থতাকারীর নির্দেশ সংক্রান্ত বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত এবং একই সঙ্গে ১০ দিনের মধ্যে মামলার সাম্প্রতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে রিপোর্টও তলব করেছে। 

অন্তর্বর্তী নির্দেশ জারির সময় আদালত জানিয়েছে, গত ২০২০ সালের ২৫ অক্টোবর জারি করা মধ্যস্থতাকারীর নির্দেশ পালন করা বাধ্যতামূলক এবং আর্বিট্রেশন অ্যান্ড কনসিলিয়েশন অ্যাক্ট অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে আবেদন জানানো বৈধ। 

সেই সঙ্গে ফর্চুন রিটেল-কে একটি ওকালতনামা জমা দিয়ে ২৫ অক্টোবর ২০২০ তারিখের নির্দেশ জারির পর থেকে রিলায়েন্স গ্রুপের সঙ্গে তাদের চুক্তি সংক্রান্ত কী কী পদক্ষেপ করা হয়েছে, সে সম্পর্কে জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এর আগে অ্যামাজন-এর আপত্তি সম্পর্কে ফিউচার গ্রুপের প্রতিক্রিয়াও জানতে চেয়েছিল আদালত।

উল্লেখ্য, এফআরএল সংস্থার বিরুদ্ধে চুক্তিভঙ্গের অভিযোগে আইনি পদক্ষেপ প্রথম করে অ্যামাজন। এ দিকে বিয়ানিদের ফিউচার রিটেল গ্রুপ অধিগ্রহণের জন্য চুক্তি করে রিলায়েন্স রিটেল। এ ভাবেই জটিল আইনি লড়াইয়ে জড়িয়ে পড়েছে ফিউচার গ্রুপ, রিলায়েন্স ও অ্যামাজন। মার্কিন সংস্থার আগাম অনুমতি বিনা এফআরএল-এর কোনও খুচরো সম্পদ বা সংস্থায় বিয়ানিদের শেয়ার বিক্রির উপরেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার আবেদন জানায় অ্যামাজন। 

অন্য দিকে, এফআরএল, এফসিপিএল ও রিলায়েন্স হাই কোর্টকে জানায়, যদি অ্যামাজনের এফসিএল-এ বিনিয়োগের সুবাদে পরোক্ষ ভাবে এফআরএল-এ বিনিয়োগ প্রমাণিত হয়, সে ক্ষেত্রে তা ভারতীয় খুচরো অপ্রত্যক্ষ বিনিয়োগ আইন অমান্য করেছে, এবং অবশ্যই শাস্তিযোগ্য হবে।

বন্ধ করুন