বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভোট দিতে গিয়ে ভুল,রীতি ভেঙে চরম বিড়ম্বনায় জার্মান চ্যান্সেলার পদপ্রার্থী!
সিডিইউয়ের চ্যান্সেলার পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট। ছবি সৌজন্যে DW
সিডিইউয়ের চ্যান্সেলার পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট। ছবি সৌজন্যে DW

ভোট দিতে গিয়ে ভুল,রীতি ভেঙে চরম বিড়ম্বনায় জার্মান চ্যান্সেলার পদপ্রার্থী!

  • ভোট দিতে গিয়ে ভুলভাল ব্যালট ভাঁজ করলেন সিডিইউয়ের চ্যান্সেলার পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট।

ভোট দিতে গিয়ে ভুলভাল ব্যালট ভাঁজ করলেন সিডিইউয়ের চ্যান্সেলার পদপ্রার্থী আরমিন লাশেট। লাশেট এমনভাবে ব্যালট ভাঁজ করে বাক্সে ফেলেছেন যে, সকলে দেখতে পেয়েছেন তিনি কাকে ভোট দিয়েছেন। লাশেট যে নিজের দলের প্রার্থীকে ভোট দেবেন, তা সহজবোধ্য। কিন্তু সংসদীয় গণতন্ত্রে ভোটদান হয় গোপন ব্যালটের মাধ্যমে। জার্মানির রীতিও তাই। লাশেট ভুলভাল ব্যালট ভাঁজ করায় তা আর গোপন থাকেনি।

তবে এর জন্য তার কোনো ক্ষতি হচ্ছে না। নির্বাচনী কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিয়েছে, তার ভোট বৈধ। কিন্তু তার এই ভুলের ছবি সামাজিক মাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। ভুল নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। তিনিও বিড়ম্বনার মধ্যে পড়েছেন। 

ভোট বৈধ

লাশেট যেভাবে ভোট দিয়েছেন, তা গোপন ব্যালটে ভোট দেয়ার ব্যবস্থার বিরোধী। তাই স্থানীয় রিটার্নিং অফিসার চাইলে তাকে ভোটদানে বাধা দিতে পারতেন।

ডিডাব্লিউর ফ্যাক্ট চেকিং টিম ফেডারেল রিটার্নিং অফিসারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। তিনি টুইট করে বলেছেন, একজন খুবই পরিচিত রাজনীতিক তার দলের পক্ষে ভোট দেবেন তা প্রত্যাশিত। তাদের সিদ্ধান্ত, এটা ভুলই। লাশেট কোনোভাবে ভোটদাতাদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করেননি।

রিটার্নিং অফিসারের ব্যাখ্যা, ভুল করে ব্যালট উল্টোদিকে ভাঁজ করা হয়েছিল। তাকে নতুন একটা ব্যালট পেপার দেয়া উচিত ছিল। কিন্তু ব্যালট একবার বাক্সে ফেলে দিলে আর কিছু করার নেই। তার ভোট বৈধ।

ভুলের নজির

লাশেটের অবশ্য ভুল করার নজির আছে। প্রচারের সময়ও একাধিক ভুল করেছেন তিনি। তার মধ্যে একটি ভুল বহু-আলোচিত।

জার্মানির প্রেসিডেন্ট যখন টিভিতে ভয়ংকর বন্যা নিয়ে বলছিলেন, তখন পিছনে দাঁড়িয়ে তাকে হাসতে দেখা গিয়েছিল।

এবার ভোটে লাশেটের নেতৃত্বাধীন সি়ডিইউ শলৎসের এসপিডি-র থেকে পিছিয়ে পড়েছে। তবে লাশেট বলেছেন, ভোটগণনা যত এগোবে, ততই ব্যবধান কমবে।লাশেট যেভাবে ভোট দিয়েছেন, তা গোপন ব্যালটে ভোট দেয়ার ব্যবস্থার বিরোধী। তাই স্থানীয় রিটার্নিং অফিসার চাইলে তাকে ভোটদানে বাধা দিতে পারতেন।

ডিডাব্লিউর ফ্যাক্ট চেকিং টিম ফেডারেল রিটার্নিং অফিসারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। তিনি টুইট করে বলেছেন, একজন খুবই পরিচিত রাজনীতিক তার দলের পক্ষে ভোট দেবেন তা প্রত্যাশিত। তাদের সিদ্ধান্ত, এটা ভুলই। লাশেট কোনোভাবে ভোটদাতাদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করেননি।

রিটার্নিং অফিসারের ব্যাখ্যা, ভুল করে ব্যালট উল্টোদিকে ভাঁজ করা হয়েছিল। তাকে নতুন একটা ব্যালট পেপার দেয়া উচিত ছিল। কিন্তু ব্যালট একবার বাক্সে ফেলে দিলে আর কিছু করার নেই। তার ভোট বৈধ।

ভুলের নজির

লাশেটের অবশ্য ভুল করার নজির আছে। প্রচারের সময়ও একাধিক ভুল করেছেন তিনি। তার মধ্যে একটি ভুল বহু-আলোচিত।

জার্মানির প্রেসিডেন্ট যখন টিভিতে ভয়ংকর বন্যা নিয়ে বলছিলেন, তখন পিছনে দাঁড়িয়ে তাকে হাসতে দেখা গিয়েছিল।

এবার ভোটে লাশেটের নেতৃত্বাধীন সি়ডিইউ শলৎসের এসপিডি-র থেকে পিছিয়ে পড়েছে। তবে লাশেট বলেছেন, ভোটগণনা যত এগোবে, ততই ব্যবধান কমবে।

বন্ধ করুন