বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Giant dinosaurs with sickle like claws: কাস্তের মতো থাবা ছিল এই ডাইনোসরের, থেরোপড প্রজাতির বাসস্থানের হদিশ পাওয়া গেল

Giant dinosaurs with sickle like claws: কাস্তের মতো থাবা ছিল এই ডাইনোসরের, থেরোপড প্রজাতির বাসস্থানের হদিশ পাওয়া গেল

থেরোপড প্রজাতির ডাইনোসরের চেহারার সঙ্গে এখনকার পাখি চেহারার কিছু সাদৃশ্য রয়েছে (Mauricio Alvarez and Gabriel Diaz/The University of Texas at Austin)

Giant dinosaurs with sickle like claws fossils revealed from Patagonia which is their first recorded place: কাস্তের মতো দুই হাতের থাবা ডাইনোসরের। থেরোপড প্রজাতির প্রথম বাসস্থান ছিল চিলির প্যাটাগোনিয়া। এবার সেখান থেকেই জীবাশ্মের খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানীরা।

চিলির প্রত্যন্ত এলাকায় এবার খোঁজ মিলল প্রাগৈতিহাসিক ডাইনোসরের পায়ের ছাপের জীবাশ্ম। অস্টিনের টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষকের অন্বেষণের ফলে এমন পায়ের ছাপের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। চিলির প্রাগৈতিহাসিক প্যাটাগোনিয়া থেকে উদ্ধার করা হয়েছে এই জীবাশ্ম। প্রাথমিক পরীক্ষানিরীক্ষার পর মনে করা হচ্ছে এটিই থেরোপড নামক ডাইনোসর প্রজাতির প্রথম ছাপ। প্রসঙ্গত এই থেরোপড প্রজাতির ডাইনোসরের চেহারার সঙ্গে এখনকার পাখি চেহারার কিছু সাদৃশ্য রয়েছে। আবার আড়ে বহরে উড়তে না-জানা ডাইনোসর প্রজাতির সঙ্গেও যথেষ্ট সাদৃশ্য রয়েছে এই প্রজাতির।

ক্রেটাসিয়াস যুগের (মেসোজয়িক পৃথিবীর শেষ ধাপ, যা জুরাসিক ও টারসিয়ারি পর্বের মাঝে ছিল) শেষ দিকে প্যাটাগোনিয়ায় ডাইনোসর ও পাখিদের বিচরণ ছিল। তার এক ঝলকও এদিন তুলে ধরেন বিজ্ঞানীরা। এই যুগ প্রায় ১০০.৫ থেকে ৬৬ মিলিয়ন বছর আগে পর্যন্ত চলেছিল। অর্থাৎ যে সময় উড়তে না-জানা ডাইনোসর ধীরে ধীরে পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। জার্নাল অফ সাউথ আমেরিকান আর্থ সায়েন্সে সম্প্রতি এই গবেষণা প্রকাশিত হয়।

মেগার‌্যাপ্টর আসলে কী?

এই বিশেষ গবেষণার অংশ হিসেবে যেকটি প্রজাতির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে, তাদের মধ্যে জায়ান্ট মেগার‌্যাপ্টরের হদিশ মিলেছে। এদের থাবার আকৃতি কাস্তের মতো গোল ও বিশালাকার। এই আদলটির সঙ্গে আধুনিক পাখি প্রজাতির বেশ মিল রয়েছে। এছাড়াও বিজ্ঞানীরা জানান, মেগার‌্যাপ্টর সেই হিসেবে বিশাল আকৃতির থেরোপড ছিল যা ক্রেটাসিয়াস যুগের প্রাণী ছিল। এদের অন্য প্রজাতির ডাইনোসর থেকে সহজে আলাদা করা যায়। কারণ এদের দুই হাতের ছাপেই ৩৫ সেমি লম্বা কাস্তে আকৃতির থাবা রয়েছে। এই প্রজাতির ডাইনোসর তাদের থাবা কেরাটিন জাতীয় পদার্থে বিশেষভাবে ঢেকে রাখত। এর ফলে পরবর্তীকালে থাবা আরও বড়, লম্বা ও তীক্ষ্ণ হয়ে ওঠে।

গবেষণাপত্রের প্রধান লেখক সারা ডেভিস জানান, প্যাটাগোনিয়ার এত বড় প্রজাতির এমন বিলুপ্তি সত্যিই বৈচিত্র্যময়। তার কথায়, ক্রেটানিয়াস যুগের শেষ দিকে বিশালাকার থেরোপড ডাইনোসর ও পাখি প্রজাতি আরও অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রাণী ও সরীসৃপের সঙ্গে একসাথে বসবাস করত। ২০১৭ সাল থেকে ডেভিস টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ববিদ্যার অধ্যাপক জুলিয়া ক্লার্কের সঙ্গে যুগ্মভাবে কাজ করছেন। তারাই গাছ ও বিভিন্ন প্রাণীর জীবাশ্ম থেকে এই গবেষণার জন্য প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করেছেন।

 

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

 

বন্ধ করুন