বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ঘাস খেতে গিয়ে গলায় ফাঁস জিরাফের, গুয়াহাটির চিড়িয়াখানায় মর্মান্তিক মৃত্যু রঙিলীর
ঘাস খেতে গিয়ে গলায় ফাঁস জিরাফের (ছবি সৌজন্যে টুইটার)
ঘাস খেতে গিয়ে গলায় ফাঁস জিরাফের (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

ঘাস খেতে গিয়ে গলায় ফাঁস জিরাফের, গুয়াহাটির চিড়িয়াখানায় মর্মান্তিক মৃত্যু রঙিলীর

  • বৃহস্পতিহার রাতে খাঁচায় ঘাস খেতে গিয়ে ঘটনাটি ঘটে বলে জানিয়েছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। ঘটনার পর শুক্রবার জিরাফের দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়।

মাচানের কাঠামোয় গলা আটকে গিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু জিরাফের। ঘটনাটি ঘটেছে গুয়াহাটির চিড়িয়াখানায়। বৃহস্পতিবার রাতে খাঁচায় ঘাস খেতে গিয়ে ঘটনাটি ঘটে বলে জানিয়েছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। ঘটনার পর শুক্রবার জিরাফের দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। মৃত স্ত্রী জিরাফটির বয়স মাত্র চার বছর।

জানা যায়, খাঁচার ধারে একটি কাঠামোতে জিরাফের গলা আটকে গিয়েছিল। এরপর সেখান থেকে গলা বের না করতে পেরে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে প্রাণ হারায় জিরাফটি। দীর্ঘ আটবছর জিরাফহীন থাকার পর রঙিলী সহ তিনটি জিরাফ আনা হয়েছিল গুয়াহাটিতে।  ২০১৯-২০ সালে আনা হয়েছিল জিরাফগুলিকে। এর আগেই একটি পুরুষ জিরাফের মৃত্যু হয়।  রঙিলীর মৃত্যুর পর এখন চিড়িয়াখানায় ‘কুলানন্দ’ নামক একটি মাত্র পুরুষ জিরাফ অবশিষ্ট। 

ঘটনা প্রসঙ্গে চিড়িয়াখানার ডিএফও অশ্বিনী কুমার জানান, গলায় ফাঁস লেগে জিরাফটির মৃত্যু হলেও ঘটনাটি ঠিক কীভাবে হয়েছে তা এখনও সঠিক জানা যায়নি। এর তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানান তিনি। এদিকে এই ঘটনার জন্য পশুপ্রেমীদের একাংশ দায়ী করেছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষকেই। প্রশ্ন উঠেছে, গলায় ফাঁস লাগার পর জিরাফটি যখন কষ্ট পাচ্ছিল, তখন জিরাফটির কিপার কোথায় ছিল? সেই কিপার আশেপাশে না থাকার জেরেই জিরাফটির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বন্ধ করুন