মেহেক মির্জা প্রভু
মেহেক মির্জা প্রভু

মুম্বইয়ে JNU বিক্ষোভে Free Kashmir পোস্টার নিয়ে পুলিশ তদন্ত, ক্ষমা চাইলেন তরুণী

দেশের সংবিধান রক্ষা করার জন্য তিনি ওই পোস্টার ধরেছিলেন বলে দাবি করেছেন মেহেক মির্জা প্রভু।

সোমবার রাত থেকে আগুনের মতো ভাইরাল হয়ে গেল এক ছবি। জেএনইউতে হিংসার বিরুদ্ধে মুম্বইয়ে গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়ায় হওয়া একটি প্রতিবাদসভায় ফ্রি কাশ্মীর পোস্টার নিয়ে হাজির হয়েছিলেন এক তরুণী। এর প্রতিবাদ করে পুলিশকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানান প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডণবীস। শিবসেনার সঞ্জয় রাউতও জানিয়েছেন যে এমন পোস্টার সহ্য করা হবে না। এই ঘটনার তদন্ত করে দেখবে বলে জানিয়েছে মুম্বই পুলিশও।

জেএনইউ কাণ্ডে পথে বলিউড- দিয়া থেকে তাপসী, মুম্বইয়ে প্রতিবাদ সেলেবদের

কিন্তু এই পোস্টার নিয়ে যিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন সেই মেহেক মির্জা প্রভু ফেসবুকে একটি ভিডিওতে আত্মপক্ষ সমর্থন করেছেন। তাঁর দাবি তিনি মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা, কাশ্মীরি নন, এমনকী কাশ্নীরের সঙ্গে কোনও তাঁর সম্পর্ক নেই। সংবিধান রক্ষার্থে তিনি ওই পোস্টার হাতে তুলে নিয়েছিলেন বলে দাবি মেহেকের।

বিতর্কিত সেই পোস্টার
বিতর্কিত সেই পোস্টার

মেহেক বলেন যে তিনি সন্ধ্যেবেলায় প্রতিবাদ সভায় গিয়েছিলেন। অন্যদের মতো তিনিও প্রতিবাদ করছিলেন বলে দাবি মেহেকের। তরুণী জানান যে ফ্রি কাশ্মীরের পোস্টারটি দেখে তাঁর মনে হয়েছিল যে সাংবিধানির অধিকার সকলের জন্য নিশ্চিত করার জন্যই সকলে একত্রিত হয়েছিলেন। সেই পরিপ্রক্ষিতে কাশ্মীরে যে বাধানিষেধ আছে, সেগুলির বিরুদ্ধে তিনি প্রতিবাদ করছিলেন, বলে দাবি মেহেকের।

তাঁর বক্তব্য যে অন্য ভারতীয়ের মতো কাশ্মীরিদের সঙ্গেও ব্যবহার করা উচিত, তাদেরও নিজেদের মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা থাকা উচিত। এই সব ভেবেই তিনি পোস্টারটি তুলে ধরেছিলেন বলে দাবি মেহেকের। তিনি কোনও স্বাধীনতার দাবি করছিলেন না, নেহাতই শান্তির বাণী দিচ্ছিলেন বলে দাবি করেছেন মেহেক। এই বিষয়টি অনেক বড়ো হয়ে গিয়েছে, এবং লোকজন তাঁকে বিশেষ গোষ্ঠীর সদস্য মনে করছে বলে নিজের অসহায়তা প্রকাশ করেন মেহেক। অনিচ্ছাকৃত ভাবে এত বড় বিতর্ক সৃষ্টি করার জন্য ক্ষমা চেয়ে নেন মেহেক।তাঁর এই সাফাই মেনে পুলিশ কোনও ব্যবস্থা না নিয়ে ছেড়ে দেয় কিনা, সেটাই দেখার।

বন্ধ করুন