বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Gold Price : ‘ওল্ড ইজ গোল্ড’, বাজার দর থেকে সস্তায় মিলছে এই সোনা, লাভবান হবেন বিনিয়োগকারীরা
পুরোনো সভরেন গোল্ড বন্ডে বিনিয়োগ করা লাভদায়ক হতে পারে (REUTERS)

Gold Price : ‘ওল্ড ইজ গোল্ড’, বাজার দর থেকে সস্তায় মিলছে এই সোনা, লাভবান হবেন বিনিয়োগকারীরা

  • রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের আবহে মাত্র এক মাসের মধ্যে সোনার দাম বেড়েছে ১০ শতাংশেরও বেশি।

মাত্র এক মাসের মধ্যে সোনার দাম বেড়েছে ১০ শতাংশেরও বেশি। এর একটি বড় কারণ রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যকার যুদ্ধ। এই যুদ্ধের জেরে বিশ্ব বাজারে অনিশ্চয়তার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। যার জেরে বিনিয়োগকারীরা সোনায় বিনিয়োগ করার দিকে ঝুঁকছেন। আর এর ফলে সোনার দাম দ্রুত বাড়ছে। এই আবহে নতুন সভরেন গোল্ড বন্ডে বিনিয়োগ করা লাভদায়ক হচ্ছে না বিনিয়োগকারীদের জন্য। যদিও পুরানো সভরেন বন্ড কেনা লাভজনক প্রমাণিত হচ্ছে বিনিয়োগকারীদের জন্য।

সভরেন গোল্ড বন্ডের মেয়াদ আট বছরের। কিন্তু পাঁচ বছর পরে এই বন্ড ভাঙানোর অনুমতি দেওয়া হয়। এই সময়ের মধ্যে এতে আড়াই শতাংশ হারে সুদ অর্জন করা যায়। বর্তমানে অধিকাংশ সভরেন গোল্ড বন্ডের দাম পাঁচ হাজার টাকার নিচে। যেখানে সোনার বাজার দর প্রতি ১০ গ্রামে ৫৩০০ টাকার বেশি।

৪ মার্চ ইস্যু করা সভরেন সোনার বন্ডের দাম প্রতি ১০ গ্রামে ছিল ৫১০৯ টাকা। যেখানে ৮ মার্চ প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম দাঁড়ায় ৫৩৪১ টাকা। এমন অবস্থায় বন্ডের দাম বাজারের তুলনায় প্রায় তিন হাজার টাকা কম। কর ছাড়ের সুবিধা শুধুমাত্র পাঁচ বছরের বন্ডের মেয়াদপূর্তিতে পাওয়া যাবে। তার আগে বিক্রি করলে কর ছাড়ের সুবিধা পাবেন না। এছাড়াও, বাজারে এটির খুব বেশি ক্রয়-বিক্রয় নেই, যার কারণে এটি সস্তা হচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তিন বছর আগে ইস্যু করা সভরেন বন্ড যদি পাঁচ শতাংশের কমে পাওয়া যায়, তাহলে তা লাভজনক চুক্তি। কারণ নতুন বিনিয়োগকারীকে মেয়াদপূর্তির জন্য মাত্র দুই বছর অপেক্ষা করতে হবে। এর পাশাপাশি কর অব্যাহতির আকর্ষণীয় সুবিধাও পাওয়া যাবে। বন্ডের সুদ হতে পারে ২.৫০ শতাংশ। কিন্তু প্রকৃত ক্ষেত্রে সুদ মাত্র এক থেকে দেড় শতাংশের কাছাকাছি হতে পারে।

বন্ধ করুন