বাড়ি > ঘরে বাইরে > শুক্রবার সামান্য পড়ল সোনার দাম, তবে রুপোর দাম চড়ল
প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৪৮,৮৭২ টাকা।
প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৪৮,৮৭২ টাকা।

শুক্রবার সামান্য পড়ল সোনার দাম, তবে রুপোর দাম চড়ল

  • সূচকে ০.১% পতনের জেরে প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৪৮,৮৭২ টাকা।

আন্তর্জাতিক বাজারে উত্থান থমকে যাওয়ার মাঝে শুক্রবার ভারতেও সোনার দামে সামান্য পতন দেখা দিল। তবে আবার বাড়ল রুপোর দর।

এ দিন এমসিএক্স সূচকে ০.১% পতনের জেরে প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৪৮,৮৭২ টাকা। গতকাল সোনার দর পড়েছিল ০.৬%। যদিও চলতি সপ্তাহের গোড়াতেই রেকর্ড দাম চড়ে প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম দাঁড়িয়েছিল ৪৯,৩৪৮ টাকা। 

তবে এদিন সূচকে ০.২৫% বৃদ্ধির ফলে প্রতি কেজি রুপোর দাম যাচ্ছে ৫১,২১৭ টাকা।

আন্তর্জাতিক বাজারে এ দিন সোনার দামে বিশেষ উত্থানপতন দেখা যায়নি, তবে তা কখনই আউন্সপ্রতি ১,৮০০ ডলার স্তরের নীচে নামেনি। সাপ্তাহিক দরের বিচারে এই নিয়ে পর পর পাঁচ সপ্তাহ বৃদ্ধি ঘটল সোনার দামে। বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা সংকটকালে নিরাপদ সম্পত্তি হিসেবেই সোনায় বিনিয়োগের হার বেড়েছে।

শুক্রবার স্পট গোল্ড সূচকে ১.৫% বৃদ্ধির জেরে প্রতি আউন্স সোনার দাম যাচ্ছে ১.৮০১.৬৯ ডলার। ইউএস এক্সচেঞ্জে ০.২% দামবৃদ্ধির ফলে প্রতি আউন্সের দর দাঁড়িয়েছে ১,৮০৬.৯০ ডলার। 

পাশাপাশি, এ দিন রুপোর দাম সূচকে ০.১% পতনের ফলে প্রতি আউন্সে যাচ্ছে ১৮.৬৫ ডলার।

বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণের উর্ধ্বগতি এবং আমেরিকা-চিন সম্পর্কের অবনতির প্রভাবে সোনায় বিনিয়োগের প্রবণতা বাড়ছে, যার ফলে তার দামে বিশেষ পতন হওয়ার আশঙ্কা নেই বলে ভিমত বাজার বিশেষজ্ঞদের। এরই প্রতিফল দেখা গিয়েছে বৃহস্পতিবার বিশ্বের বৃহত্তম স্বর্ণভিত্তিক ইটিএফ-এ। ওই দিন মোট মজুত সোনার পরিমাণ ০.১৫% বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১,২০০.৮২ টনে। 

অন্য দিকে, আজই শেষ হচ্ছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কর্তৃক ভারতের বাজারে ছাড়া গোল্ড বন্ডের চতুর্থ কিস্তির ইস্যু বুকিংয়ের সময়সীমা। প্রতি গ্রাম হিসেবে ইস্যুর ন্যূনতম দাম রাখা হয়েছে ৪,৮৫২ টাকা। অনলাইন বুকিংয়ে দেওয়া হচ্ছে ইস্যুপ্রতি ৫০ টাকা ছাড়। 

বন্ধ করুন