বুধবার সকালেও নিম্নগামীই রইল সোনার দাম।
বুধবার সকালেও নিম্নগামীই রইল সোনার দাম।

সোনার দাম বুধবার কমলেও রোখা গিয়েছে উল্লেখযোগ্য পতন, বলছে বাজার

  • বুধবার সকালেও নিম্নগামীই রইল সোনার দাম। রুপোর দামে উত্থান দেখা গিয়েছে।

মঙ্গলবার উল্লেখযোগ্য পতনের পরে বুধবার সকালেও নিম্নগামীই রইল সোনার দাম। এ দিন এমসিএক্স সূচকে জুন গোল্ডের দর অনুযায়ী প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম প্রায় ১০০ টাকা পড়ার ফলে দাঁড়িয়েছে ৪৫,৬৫০ টাকা। 

তবে এ দিন রুপোর দামে উত্থান দেখা গিয়েছে। দেশের বাজারে এ দিন ০.৫% দাম চড়ার ফলে প্রতি এককেজি রুপোর দাম যাচ্ছে ৪২,১৩৪ টাকা। 

একাধিক দেশে ধীরে ধীরে বাজারে লেনদেন চালুর জেরে ঝুঁকির পারদ কিছু নামলে আন্তর্জাতিক বাজারেও এ দিন সোনার দামে পতন দেখা দিয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে ডলারের মজবুত দরের প্রভাবও।

এ দিন স্পট গোল্ড ০.১% পতনের জেরে প্রতি আউন্স সোনার দাম দাঁড়িয়েছে ১,৭০৪.৮৮ ডলার। পাশাপাশি, এ দিন রুপোর দাম ০.১% পতনের জেরে প্রতি আউন্সের দাম দাঁড়িয়েছে ১৫.০১ ডলার।

অন্য দিকে, সোনায় বিনিয়োগের পাল্লা এ দিনও ভারীই দেখা গিয়েছে। বিশ্বের বৃহত্তম সোনা সূচক এসপিডিআর গোল্ড ট্রাস্ট ০.৪% উত্থানের জেরে মঙ্গলবার পৌঁছেছে ১,০৭৬.৩৯ টনে। সোমবার সূচক ছিল ১,০৭১.৭১ টনে।

এ দিন কোটাক সিকিউরিটির তরফে জানানো হয়েছে, সোনার দাম আউন্সপ্রতি ১,৭০০ ডলারের কাছাকাছি রয়েছে কিন্তু নানান কারণে আরও উত্থানের পধে বাধা সৃষ্টি হয়েছে। আমেরিাক-চিন সম্পর্কের অবনতির জের, বেশ কিছু দেশের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত উদ্বেগ, বিশ্বের প্রধান ব্যাঙ্কগুলির আর্থিক নীতি শিথিল করা এবং বিভিন্ন জনকল্যাণমূলক খাতে সরকারি ভরতুকির কারণে সোনার দাম প্রভাবিত হচ্ছে।

বলা হয়েছে, আগামী বেশ কিছু দিন সোনার দামে উত্থান-পতন জারি থাকবে। দাম পড়লে বিনিয়োগের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। নজর রাখতে হবে আন্তর্জাতিক ও দেশীয় স্তরে স্বাস্থ্য পরিস্থিতি ও সরকারি পদক্ষেপের উপরে, যা আখেরে বাজারদরের ওঠানামাকে চালিত করবে। 

 

বন্ধ করুন