দাম বাড়ায় রেকর্ড গড়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৩.৩% পড়ল ভারতে সোনার দাম। প্রতি গ্রাম সোনায় দাম পড়ল ১,৫৭৩ টাকা।

বৃহস্পতিবার প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম বেড়ে পৌঁছেছিল ৪৭,৩৭২ টাকায়। শুক্রবার সেই দাম এসে দাঁড়াল প্রতি ১০ গ্রামে ৪৫,৬৮৫ টাকা। লকডাউনের বাজারে এ ভাবেই সপ্তাহভর ওঠানামা বহাল থাকল সোনার দামে।

তবে শুধু ভারতেই নয়, সপ্তাহব্যাপী সোনার দামের এই খামখেয়ালি ওঠানামার সাক্ষী থাকল গোটা বিশ্ব। শুক্রবার বিশ্ববাজারে সোনার দাম ২% পতনের ফলে প্রতি আউন্সের দাম দাড়াল ১,৭০০ ডলারেরও নীচে। যদিও তার আগেই তিন দফায় মার্কিন অর্থনীতি চালু করার ঘোষণা করেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, এবং তার জেরে শেয়ার বাজার কিছুটা চাঙ্গা হতে দেখা যায়।

সোনার পাশাপাশি রুপোর দামেও বৃহস্পতিবারের তুলনায় ৩.৫৯% পতন হয়েছে দেশের বাজারে। যার জেরে শুক্রবার ভারতে প্রতি কেজি রুপোর দাম দাঁড়ায় ৪২,৬৬৭ টাকা।



আরও পড়ুন: অবশেষে একটু কমল সোনার দাম, পতন রুপোর দামেও


কোটাক সিকিউরিটিস-এর তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘গত কয়েক দিনে বিশ্ববাজারে সোনার দামে বৃদ্ধি দেখা গেলেও সপ্তাহের শেষে তা ফের নিম্নমুখী হয়ে আউন্সপ্রতি ১,৭৫০ ডলারে টিকে থাকাই কষ্টকর হয়ে পড়েছে। মার্কিন ডলারের শক্তির ভিত্তিতে বিনিয়োগকারীদের প্রতি আমাদের পরামর্শ, নীচু স্তরে সোনার পুনর্মূল্যায়ন না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করাই উচিত হবে।’

অন্য দিকে, করোনা সংক্রমণের জেরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে লকডাউন জারি করার ফলে সোনা কেনাবেচায় চূড়ান্ত বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছে। রেকর্ড দাম বাড়লেও সোনার চাহিদা বাড়ার পথে নিষেধাজ্ঞার গেরো অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।



আরও পড়ুন: সাত বছরে সর্বোচ্চ হল সোনার দাম

চলতি ২০২০-২০২১ অর্থবর্ষে প্রথম দফার সভরেন গোল্ড বন্ড কেনার জন্য আগামিকাল, সোমবার থেকে গ্রাহক নথিভুক্তিকরণ চালু করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। আগামী ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত তা চালু থাকবে বলে জানা গিয়েছে। সরকারি নির্ঘণ্ট অনুযায়ী, বছরের প্রথমার্ধ্বে মোট ৬ দফায় গোল্ড বন্ড ছাড়বে সরকার। প্রতি মাসে ছাড়া হবে একটি দফা।


বন্ধ করুন