বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বড়সড় উত্থানের পর বুধবার কমল সোনার দাম, পড়ল রুপোও
বড়সড় উত্থানের পর বুধবার কমল সোনার দাম, পড়ল রুপোও। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
বড়সড় উত্থানের পর বুধবার কমল সোনার দাম, পড়ল রুপোও। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

বড়সড় উত্থানের পর বুধবার কমল সোনার দাম, পড়ল রুপোও

  • বিশ্ব বাজারের রেশ ধরে গত সেশনে সোনার দাম বেড়েছিল ১.৪ শতাংশ।

ভারতীয় বাজারে চাপের মুখে থাকল সোনা। বুধবার এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম সোনার দাম ০.৪২ শতাংশ বা ১৮৭ টাকা কমে দাঁড়িয়েছে ৪৪,৬৭০ টাকা। আরও বেশি পতনের সাক্ষী থেকেছে রুপো। এক কিলোগ্রাম রুপোর দাম ১.১৩ শতাংশ বা ৭৬১ টাকা কমে হয়েছে ৬৬,৭১৯ টাকা।

বিশ্ব বাজারের রেশ ধরে গত সেশনে সোনার দাম বেড়েছিল ১.৪ শতাংশ। রুপো বেড়েছিল ২.৬ শতাংশ। গত সপ্তাহ ধরে সোনার নিম্নমুখী গ্রাফ বজায় আছে। তার আগে গত বছর সোনার দাম বেড়েছিল ২৫ শতাংশ। সেই বছরের ৭ অগস্ট ভারতীয় বাজারে ১০ গ্রাম সোনার দর রেকর্ড ৫৬,২০০ টাকায় পৌঁছে গিয়েছিল। তারপর থেকে সোনার দাম অনেকটা নীচে নেমে গিয়েছে। চলতি বছরেও সোনার দাম অনেকটা কমেছে। অর্থাৎ রেকর্ড দরের থেকে ১০ গ্রাম হলুদ ধাতুর দাম প্রায় ১১,৫০০ টাকা পড়ে গিয়েছে।

বিশ্ব বাজারেও কমেছে হলুদ ধাতুর দাম। সোনা রেখে দেওয়ার প্রবণতা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে এক আউন্স সোনার দাম ০.২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১,৭১২.৮২ আউন্স। গত সেশনে অবশ্য এক লাফে অনেকটা বেড়েছিল সোনার দাম। অন্যান্য দামী ধাতুর মধ্যে এক আউন্স রুপোর দাম ০.৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২৫.৭৮ ডলার। কমেছে হিরের দরও।

জিয়োজিত্‍ ফিনান্সিয়াল সার্ভিসের তরফে জানানো হয়েছে, মার্কিন ডলার দ্রুত ঘুরে দাঁড়ানো এবং বিশ্বব্যাপী আর্থিক প্রবণতার কারণে সোনার দামে প্রভাব পড়েছে। কিন্তু হলুদ ধাতুর চাহিদা এবং মার্কিন আর্থিক প্যাকেজের কারণে সোনার বড়সড় পতন হবে না মত বিশেষজ্ঞ মহলের। একইসঙ্গে সৌদি আরবের আঞ্চলিক রাজনীতির কারণেও সহায়তা লাভ করতে পারে হলুদ ধাতু। কারণ রবিবার বিশ্বের অন্যতম সুরক্ষিত অপরিশোধিত তেলের কেন্দ্র আক্রমণের মুখে পড়েছে।

বন্ধ করুন