বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > হুড়মুড়িয়ে পতনের পর আবারও বাড়ল সোনা-রুপোর দাম, বাজারে ছাড়া হয়েছে গোল্ড বন্ড
হুড়মুড়িয়ে পতনের পর আবারও বাড়ল সোনা-রুপোর দাম (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
হুড়মুড়িয়ে পতনের পর আবারও বাড়ল সোনা-রুপোর দাম (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

হুড়মুড়িয়ে পতনের পর আবারও বাড়ল সোনা-রুপোর দাম, বাজারে ছাড়া হয়েছে গোল্ড বন্ড

  • চলতি অর্থবর্ষের অষ্টম দফার গোল্ড বন্ড বাজারে ছাড়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস টিকা সংক্রান্ত ঘোষণার পর একধাক্কায় পড়েছিল সোনা এবং রুপোর দাম। পরদিন তা আবারও ঘুরে দাঁড়াল। মঙ্গলবার ভারতীয় বাজারে ১০ গ্রাম ডিসেম্বর গোল্ড ফিউচার্সের দাম প্রায় এক শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০,২১৯ টাকা। সেখানে এক কেজি রুপোর দাম দু'শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৬২,১১৬ টাকা। 

গত সেশনে ভারতের বাজারে ১০ গ্রাম সোনার দাম ২,৫০০ টাকা কমেছিল। আর প্রতি কেজিতে রুপোর দাম কমেছিল ৪,৬০০ টাকা। সেই পতনের আগেই মার্কিন সংস্থা ফাইজার ঘোষণা করেছিল, করোনাভাইরাস রুখতে ‘ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট’-এর ৯০ শতাংশেরও বেশি কার্যকারিতার প্রমাণ মিলেছে। তাতেই লগ্নিকারীদের মধ্যে ঝুঁকির প্রবণতা বেড়েছিল। আর তার জেরেই কমেছিল হলুদ ধাতুর দর।

শুধু ভারতীয় বাজার নয়, সেই ঘোষণার পর বিশ্ব বাজারেও হুড়মুড়িয়ে পড়েছিল সোনার দাম। গত সেশনে পাঁচ শতাংশ কমেছিল সোনার দর। সেই সময় এক আউন্স স্পট গোল্ডের দাম ছিল ১,৮৪৯.৯৩ ডলার। যা গত ২৮ সেপ্টেম্বরের পর থেকে ছিল সর্বনিম্ন। সেখান থেকে ০.৫ শতাংশ বেড়ে এক আউন্স স্পট গোল্ডের দাম হয়েছে ১,৮৭১.৮১ ডলার। বিশেষজ্ঞদের মতে, মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের মধ্যে সোনার যে উত্থান হয়েছিল, তা টিকার কার্যকারিতার খবরের পর ধসে গিয়েছে। লগ্নিকারীরা এতদিন যে মেপে পা ফেলছিলেন, তাঁরা বাজারে বাড়তি নগদ বিনিয়োগ করেছেন। 

এদিকে, দাম কিছুটা কমে যাওয়ায় ভারতে সোনার চাহিদা বাড়তে পারে। বিশেষত চলতি সপ্তাহেই আছে ধনতেরাস এবং দীপাবলি। সেক্ষেত্রে সোনার বিক্রি বাড়তে পারে। পাশাপাশি চলতি অর্থবর্ষের অষ্টম দফার গোল্ড বন্ড বাজারে ছাড়া হয়েছে। প্রতি গ্রাম সোনার দাম ধার্য করা হয়েছে ৫,১৭৭ টাকা। অনলাইনে আবেদন এবং ডিডিটাল মোডে লেনদেন করলে প্রতি গ্রামে ৫০ টাকা ছাড় পাবেন বিনিয়োগকারীরা।

বন্ধ করুন