বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > হুড়মুড়িয়ে বৃদ্ধির পর বৃহস্পতিবার সস্তা হল সোনা, আগামিদিনে তেমন কমবে না দাম
হুড়মুড়িয়ে বৃদ্ধির পর বৃহস্পতিবার সস্তা হল সোনা, আগামিদিনে তেমন কমবে না দাম। (ছবিটি প্রতীকী) 
হুড়মুড়িয়ে বৃদ্ধির পর বৃহস্পতিবার সস্তা হল সোনা, আগামিদিনে তেমন কমবে না দাম। (ছবিটি প্রতীকী) 

হুড়মুড়িয়ে বৃদ্ধির পর বৃহস্পতিবার সস্তা হল সোনা, আগামিদিনে তেমন কমবে না দাম

  • গত সেশনে সোনার দাম ৪৯,০০০ টাকার কাছে পৌঁছে গিয়েছিল।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় বাজারে কমল সোনার দাম। এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম সোনার দাম ০.৩২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৮,৫২০ টাকা। অন্যদিকে, টানা তিনদিন পড়েছে রুপোর দাম। এক কেজি রুপোর দাম ০.৪ শতাংশ কমে হয়েছে ৭২,০৭৩ টাকা।

গত সেশনে ১০ গ্রাম সোনার দর ৪৮,৭০০ টাকায় পৌঁছে গিয়েছিল। যা তিনমাসে সর্বোচ্চ। ক্যাপিটালভায়া ইনভেস্টমেন্ট অ্যাডভাইজারের বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছে, এমসিএক্স সূচকে ৪৮,০০০-৪৭,৯০০ টাকা স্তরে সহায়তা পাচ্ছে ১০ গ্রাম হলুদ ধাতু। যদি বড় মাত্রায় ধাক্কা খায় তাহলেও সোনার দাম ৪৭,৭০০ টাকার নীচে নামবে না। আর রুপোর ক্ষেত্রে ৭১,০৫০-৭০,৯০০ টাকায় সহায়তা মিলছে।

এমনিতে রিলগেরে ব্রোকিং লিমিটেডের সুগন্ধা সচদেব জানিয়েছেন, মধ্যবর্তী সময় এক কেজি রুপোর দাম ৭৫,৫০০-৭৬,০০০ টাকায় পৌঁছে যেতে পারে। দীর্ঘ সময় বা বছর শেষের মধ্যে তা ৮৫,০০০ টাকা ছুঁয়ে যেতে পারে বলে ধারণা সুগন্ধার। সোনার ক্ষেত্রে তিনি জানিয়েছেন, মধ্যবর্তী সময় ১০ গ্রাম সোনার দর ৫২,০০০ টাকায় পৌঁছে যেতে পারে। আর দীর্ঘকালীন সময় সোনার দাম পৌঁছে যেতে পারে ৫৫,০০০-৬০,০০০ টাকায়।

বিশ্ব বাজারে সোনার দামের তেমন হেরফের হয়নি। এক আউন্স সোনার দাম ১,৮৬৯.৫ ডলারে ঠেকেছে। বুধবার হলুদ ধাতুর দাম ১,৮৮৯.৭৫ ডলারে পৌঁছে গিয়েছিল। যা চার মাসের সর্বোচ্চ। শক্তিশালী ডলারের প্রভাব পড়েছে সোনার দামে। অন্যান্য মূল্যবান ধাতুর মধ্যে রুপো এবং হিরের দাম কমেছে। এক আউন্স রুপোর দাম ০.৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২৭.৬৬ ডলার। 

বন্ধ করুন