বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রেকর্ডের থেকে ১১,৫০০ টাকা কম সোনা, বৃহস্পতিবার সস্তা হল রুপো
রেকর্ডের থেকে ১১,৫০০ টাকা কম সোনা, বৃহস্পতিবার সস্তা হল রুপো। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
রেকর্ডের থেকে ১১,৫০০ টাকা কম সোনা, বৃহস্পতিবার সস্তা হল রুপো। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

রেকর্ডের থেকে ১১,৫০০ টাকা কম সোনা, বৃহস্পতিবার সস্তা হল রুপো

  • গত সেশনে বেড়েছিল সোনা এবং রুপোর দর।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় বাজারে বাড়ল না সোনা এবং রুপোর দাম। এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম গোল্ড ফিউচার্স ৪৪,৮৯৭ টাকায় অবিচল আছে। আর রুপোর দর ০.১৬ শতাংশ হ্রাস পেয়ে হয়েছে ৬৫,১৪০ টাকা। 

গত সেশনে সোনা এবং রুপোর দাম বেড়েছিল ০.৪৫ শতাংশ। চলতি মাসের শুরুতে প্রায় এক বছরের সর্বনিম্ন স্তরে পড়ে যাওয়ার পর গত দু'সপ্তাহ ধরে হলুদ ধাতুর দাম মোটামুটি একটি নির্দিষ্ট স্তরে থাকছে। গত বছর অগস্টে ১০ গ্রাম সোনার দাম রেকর্ড ৫৬,২০০ টাকায় পৌঁছে গিয়েছিল। আপাতত রেকর্ড দরের থেকে ১০ গ্রাম সোনার দর ১১,৫০০ টাকা কম আছে।

বিশ্ব বাজারেও সোনার দামের হেরফের হয়নি। এক আউন্স স্পট গোল্ডের দাম ১,৭৩৪.৮১ ডলার পড়ছে। ক্যাপিটালভায়া গ্লোবাল রিসার্চ লিমিটেডর তরফে জানানো হয়েছে, ১,৭৪০ ডলারে বাধা পাচ্ছে এক আউন্স সোনার দাম। আর সহায়তা পাচ্ছে ১,৭২০-১,৭২৫ ডলারের স্তরে। অন্যান্য মূল্যবান ধাতুর মধ্যে রুপো এবং হিরের দাম বেড়েছে। এক আউন্স রুপোর দাম বেড়ে হয়েছে ২৫.১ ডলার।

বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, করোনাভাইরাসের তৃতীয় স্রোত (ওয়েভ) এবং মার্কিন করের হারে বৃদ্ধির আশঙ্কার মধ্যে ছ'টি অন্য মুদ্রার তুলনায় মার্কিন ডলার উর্ধ্বমুখী হয়েছে। হিসাব মতো ৯২.২৫ ডলারে সহায়তা পাচ্ছে ডলার সূচক এবং বাধা পাচ্ছে ৯২.৬ ডলারে। আর যদি ডলার সূচক ৯২.৬ ডলারের উপরে চলে যায়, তাহলে তা ৯৩ ডলারের গণ্ডি ছাড়িয়ে দেবে। সেই সঙ্গে বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ অর্থনীতির মিশ্র তথ্য, নতুন করে করোনাভাইরাস সংক্রমণ এবং মার্কিন-চিনা ও মার্কিন-রুশ সম্পর্কের মধ্যে যে উত্তেজনা বেড়েছে, তার প্রভাব পড়েছে সোনার উপর।

বন্ধ করুন