বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > অনেকটা দাম বৃদ্ধির পরদিনই সস্তা হল সোনা, কমে গেল রুপোর দরও
অনেকটা দাম বৃদ্ধির পরদিনই সস্তা হল সোনা, কমে গেল রুপোর দরও। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
অনেকটা দাম বৃদ্ধির পরদিনই সস্তা হল সোনা, কমে গেল রুপোর দরও। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

অনেকটা দাম বৃদ্ধির পরদিনই সস্তা হল সোনা, কমে গেল রুপোর দরও

  • উৎসবের মরশুমে ভারতে সোনা কেনার জন্য কি আরও অপেক্ষা করা উচিত নাকি এখনই কিনে নেওয়া উচিত?

বড়সড় উত্থানের পরদিনই ভারতীয় বাজারে কমল সোনার দাম। মঙ্গলবার এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম গোল্ড ফিউচার্সের দাম ০.২৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৬,৭৭৯ টাকা। সেইসঙ্গে কমেছে রুপোর দাম। এক কিলোগ্রাম রুপোর দাম ০.৫ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৬০,৬৫১ টাকা।

গত সেশনে সোনার দাম ০.৮ শতাংশ বেড়েছিল। সেখানে ০.৬৫ শতাংশ উত্থানের সাক্ষী ছিল রুপো। এমনিতে গত শুক্রবার এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম ডিসেম্বর গোল্ড ফিউচার্সের দাম ০.৫ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছিল ৪৬,৫০০ টাকা। সেপ্টেম্বরে সোনার দাম চার শতাংশের মতো কমেছিল। তার আগে গত বছর অগস্টে ১০ গ্রাম সোনার দাম ৫৬,২০০ টাকায় পৌঁছে গিয়েছিল। আপাতত রেকর্ডের থেকে ১০,০০০ টাকার মতো কম আছে ১০ গ্রাম সোনার দাম।

অন্যদিকে, বিশ্ব বাজারে কমেছে সোনার দাম। বিশ্বব্যাপী আর্থিক বৃদ্ধি নিয়ে শঙ্কার মধ্যে শক্তিশালী হয়েছে মার্কিন ডলার। তার প্রভাবে হলুদ ধাতুর দামের গ্রাফ নিম্নমুখী হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। মঙ্গলবার বিশ্ব বাজারে এক আউন্স স্পট গোল্ডের দাম ০.৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১,৭৬১.৬৯ ডলার। গত সেশনে অবশ্য সেই দাম ১,৭৭০.৬৯ ডলারে ঠেকেছিল। যা প্রায় দু'সপ্তাহে সর্বাধিক ছিল। বিশেষজ্ঞদের মতে, আগামী শুক্রবার মার্কিন বেতন সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ পরিসংখ্যান প্রকাশের আগে সোনার দামে হেরফের হতে থাকবে। এক আউন্স সোনার দাম ১,৭৫০ ডলার থেকে ১,৭৮৫ ডলারের মধ্যে ঘোরাফেরা করবে। তারইমধ্যে মঙ্গলবার বিশ্ব বাজারে কমেছে রুপোর দাম। এক আউন্স রুপোর দাম ০.৮ শতাংশ কমে হয়েছে ২২.৪৭ ডলার। 

উৎসবের মরশুমে ভারতে সোনা কেনার জন্য কি আরও অপেক্ষা করা উচিত নাকি এখনই কিনে নেওয়া উচিত?

আইআইএফএল সিকিউরিটিজের অনুজ গুপ্ত জানান, চলতি মাসের প্রথম ১৪-১৫ দিনে এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম সোনার দাম আরও কমে ৪৫,৫০০ টাকা থেকে ৪৫,০০০ টাকায় নেমে যেতে পারে। কারণ সেই সময় মার্কিন ডলার শক্তিশালী থাকার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। যখনই মার্কিন ডলারের দুর্বলতার কোনও লক্ষণ ধরা পড়বে, তখনই আন্তর্জাতিক বাজারে এক আউন্স সোনার দাম ১,৭৫০ ডলার থেকে ১,৭৬০ ডলারের গণ্ডি পার করে যেতে পারে। যা পরবর্তী এক মাসে ১,৮০০ ডলার থেকে ১,৮৫০ ডলারের স্তরে ছুঁয়ে ফেলার সম্ভাবনা আছে। তার প্রভাব পড়বে ভারতীয় বাজারেও। পরবর্তী এক মাসে এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম সোনার দাম ৪৮,০০০ টাকা থেকে ৪৮,৫০০ টাকার কাছাকাছি পৌঁছে যেতে পারে।

একইসুরে গঙ্গানগর কমিউনিটি লিমিটেডের অমিত খাড়ে জানান, এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম ৪৫,০০০ টাকা থেকে ৪৬,০০০ টাকার মধ্যে থাকলে সোনার লগ্নিকারীরা ভালো সুযোগ পাবেন। যা রেকর্ড দরের থেকে ১০,০০০ টাকারও কম। আগামী তিন মাসে ১০ গ্রাম সোনার দাম ৪,০০০ থেকে ৫,০০০ টাকা বৃদ্ধি পেতে পারে।

বন্ধ করুন