বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Gyanvapi Masjid survey: বারাণসীর জ্ঞানবাপী মসজিদের কাছে মিলল স্বস্তিক চিহ্ন, সার্ভে ঘিরে বিতর্কের মাঝে তোপ ওয়াইসির
জ্ঞানবাপি মসজিদের সমীক্ষা বন্ধ রয়েছে আপাতত (PTI)
জ্ঞানবাপি মসজিদের সমীক্ষা বন্ধ রয়েছে আপাতত (PTI)

Gyanvapi Masjid survey: বারাণসীর জ্ঞানবাপী মসজিদের কাছে মিলল স্বস্তিক চিহ্ন, সার্ভে ঘিরে বিতর্কের মাঝে তোপ ওয়াইসির

  • Gyanvapi Masjid survey: দিল্লির বাসিন্দা রাখি সিং, লক্ষ্মী দেবী, সীতা সাহু এবং অন্যান্যদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বারাণসী জেলা আদালতের নির্দেশে এই সমীক্ষা চালানো হচ্ছে। আজকে সমীক্ষার দ্বিতীয় দিনেও কোর্ট কমিশনারকে ভিতরে যেতে বাধা দেওয়ায় হয়। এর জেরে জ্ঞানবাপী মসজিদে সমীক্ষা করা যায়নি।

বারাণসীর জ্ঞানবাপি-শ্রীঙ্গার গৌরী কমপ্লেক্সে সমীক্ষা ও ভিডিয়োগ্রাফির সময় জ্ঞানবাপি মসজিদের কাছে দুটি স্বস্তিকের চিহ্ন দেখা গিয়েছিল শনিবার। এরপরই বিক্ষোভের মুখে পড়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই সমীক্ষা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। কোর্ট কমিশনারের দলের ভিডিয়োগ্রাফাররা বলেন যে তাঁরা সমীক্ষা চালনোর সময় মসজিদের বাইরে দুটি অবছা কিন্তু সুস্পষ্ট স্বস্তিক চিহ্ন দেখতে পান। তিনি বলেন যে স্বস্তিকগুলি সম্ভবত প্রাচীনকালে তৈরি হয়েছিল। (আরও পড়ুন: তাজমহলের ঘরে লুকিয়ে হিন্দু দেবদেবীর মূর্তি! রহস্য ভেদে হাইকোর্টে মামলা BJP-র)

এদিকে জরিপের কাজ এখনো শেষ হয়নি। আজকে সমীক্ষার দ্বিতীয় দিনেও কোর্ট কমিশনারকে ভিতরে যেতে বাধা দেওয়ায় হয়। এর জেরে জ্ঞানবাপী মসজিদে জরিপ করা যায়নি। একদিকে মুসলিম পক্ষ কমিশনারের অপসারণের দাবি জানিয়েছে। অপরদিকে এ বিষয়ে উসকানিমূলক স্লোগান দেওয়ার অভিযোগে একজনকে আটক করা হয়েছে। সমীক্ষার এই বিষয়ে আদালতে পরবর্তী শুনানি হবে ৯ মে। উল্লেখ্য, দিল্লির বাসিন্দা রাখি সিং, লক্ষ্মী দেবী, সীতা সাহু এবং অন্যান্যদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বারাণসী জেলা আদালতের নির্দেশে এই সমীক্ষা চালানো হচ্ছে।

এদিকে এই সমীক্ষা ঘইরে বিতর্কের মাঝেই মুখ খুলেছেন এআইএমআইএম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি। শনিবার তিনি বলেন যে জ্ঞানবাপি-শ্রীঙ্গার গৌরী কমপ্লেক্সের কিছু এলাকা জরিপ করার বিষয়ে আদালতের সাম্প্রতিক আদেশ ‘মুসলিম বিরোধী সহিংসতার মতো পথ খুলে দিচ্ছে’। তিনি এই ঘটনাকে রথযাত্রার রক্তপাত এবং ১৯৮০-৯০-এর দশকের বাবরি বিতর্কের সঙ্গে তুলনা করেন। বারাণসী আদালতের আদেশের নিন্দা করে আসাদউদ্দিন ওয়াইসি একটি টুইটে লেখেন, ‘কাশীর জ্ঞানবাপি মসজিদ জরিপ করার এই আদেশটি ১৯৯১ সালের উপাসনা স্থান আইনকে স্পষ্টতই লঙ্ঘন করছে। এই আইন ধর্মীয় স্থানের রূপান্তরকে নিষিদ্ধ করে।"

অপরদিকে জ্ঞানবাপি মসজিদ সংক্রান্ত সমীক্ষা বিতর্ক নিয়ে বিজেপি নেতা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুক্তার আব্বাস নকভির বলেন, আদালতের সিদ্ধান্তের উপর মন্তব্য সমর্থনযোগ্য নয়। তিনি আরও বলেছিলেন যে কোটি কোটি মানুষের বিশ্বাসের সাথে সম্পর্কিত এই ইস্যুতে ঔরঙ্গজেবের দ্বারা সংঘটিত সাম্প্রদায়িক বর্বরতাকে তিনি উপেক্ষা করতে পারবেন না।

বন্ধ করুন