বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Gyanvapi Survey Report: জমা পড়ল জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়ে ১২ পাতার রিপোর্ট, কী মিলেছে সমীক্ষায়?
জ্ঞানবাপী মসজিদ (ফাইল ছবি) (HT_PRINT)

Gyanvapi Survey Report: জমা পড়ল জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়ে ১২ পাতার রিপোর্ট, কী মিলেছে সমীক্ষায়?

  • ১৪ থেকে ১৬ মে পর্যন্ত এই সমীক্ষার উপর ভিত্তি করে ১২ পৃষ্ঠার রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। এদিকে হিন্দু পক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টে জ্ঞানবাপী মামলা পিছিয়ে যায়। আগামিকাল বিকেল ৩টের সময় পরবর্তী শুনানির সময় ধার্য করেছে শীর্ষ আদালত। ততক্ষণ পর্যন্ত বারাণসী আদালতেও শুনানি স্থগিত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

জ্ঞানবাপী মসজিদ মামলায় কোর্ট কমিশনার বিশাল সিং আজ বারাণসী সিভিল জজ সিনিয়র ডিভিশনের আদালতে তিন দিনের সমীক্ষা রিপোর্ট পেশ করেছেন। ১৪ থেকে ১৬ মে পর্যন্ত এই সমীক্ষার উপর ভিত্তি করে ১২ পৃষ্ঠার রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। এখন দেখার বিষয় আদালতের তরফ থেকে এই রিপোর্টের বিষয়ে কী বলা হয়। এদিকে হিন্দু পক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টে জ্ঞানবাপী মামলা পিছিয়ে যায়। আগামিকাল বিকেল ৩টের সময় পরবর্তী শুনানির সময় ধার্য করেছে শীর্ষ আদালত। ততক্ষণ পর্যন্ত বারাণসী আদালতেও শুনানি স্থগিত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাই সমীক্ষা রিপোর্টে কী রয়েছে, তা আজকে জানা যাচ্ছে না।

বারাণসী আদালতে সমীক্ষা রিপোর্ট পেশ করার পর কোর্ট কমিশনার বিশাল সিং জানান যে তার তরফে রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়েছে। আদালতে হিন্দু পক্ষের পক্ষ থেকে দুটি আবেদন করা হয়েছে, যার শুনানি হবে। জ্ঞানবাপী মসজিদের সমীক্ষা প্রতিবেদন দাখিল করার পরে কোর্ট কমিশনার বিশাল সিং আরও বলেছেন যে আমরা একটি সিল করা কভারে একটি ভিডিও চিপও জমা করেছি আদালতে। সবকিছু আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে। 

এদিকে মঙ্গলবার অপসারিত হওয়া অ্যাডভোকেট কমিশনার অজয় ​​কুমার মিশ্র ৬ মে, ৭ মে জ্ঞানবাপী কমপ্লেক্সে সমীক্ষা নিয়ে কমিশনের কার্যক্রমের উপর একটি রিপোর্ট দাখিল করেন। সেই রিপোর্ট গ্রহণ করে আদালত। উল্লেখ্য, পাঁচজন মহিলা জ্ঞানবাপী মসজিদকে হিন্দু মন্দির দাবি করে পুজো করার অনুমতি চেযে আবেদন করেছিলেন বারাণসীর আদালতে। এরপর আদালত সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে একটি সমীক্ষার নির্দেশ দেয়। বিতর্ক সত্ত্বেও সেই সমীক্ষা সম্পন্ন হয়।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টে বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় এবং বিচারপতি পিএস নরসীমার ডিভিশন বেঞ্চ জ্ঞানবাপী মসজিদের মামলাটি চলছে। এই আবহে বৃহস্পতিবার যখন মামলার শুনানি শুরু হয়, তখন হিন্দু পক্ষের আইনজীবী বিষ্ণু শঙ্কর জৈন আদালতকে বলেছিলেন যে তাঁর সহকর্মী সিনিয়র অ্যাডভোকেট হরিশঙ্কর জৈনের শরীর ভালো নেই। তাই আগামিকাল আদালতে এ বিষয়ে শুনানি করতে হবে। এরপর শুক্রবার বিকেল ৩টায় পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করে সুপ্রিম কোর্ট।

বন্ধ করুন