বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দারিদ্রসীমার নীচে করোনা আক্রান্ত পরিবারের পাশে হরিয়ানা সরকার
 অনিল ভিজ (ফাইল ছবি)

দারিদ্রসীমার নীচে করোনা আক্রান্ত পরিবারের পাশে হরিয়ানা সরকার

  • হরিয়ানার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, করোনা আক্রান্ত যারা এই সব সুবিধা পাবেন, তাঁদের অবশ্যই পরিবার পেহচান পত্র থাকা বাধ্যতামূলক।পাশাপাশি করোনা সংক্রান্ত সাহায্যের জন্য সরকারের তরফে একটি হেল্প লাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে।সেই হেল্প লাইন নম্বরটি হল–৮৫৫৮৮৯৩৯১১।

‌করোনা পরিস্থিতিতে দারিদ্রসীমার নীচে বসবাসকারী আক্রান্ত পরিবারকে চিকিৎসায় সাহায্য করার পরিকল্পনা হরিয়ানা সরকারের।হরিয়ানার স্বাস্থ্য মন্ত্রী অনিল ভিজ সোমবার ঘোষণা করেন,‘‌করোনা পরিস্থিতিতে যে দারিদ্রসীমার নীচে থাকা পরিবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের ৫ হাজার টাকা চিকিৎসা বাবদ দেওয়া হবে।’‌

এদিন  মন্ত্রী অনিল ভিজ জানান, যে সব দারিদ্রসীমার নীচে থাকা পরিবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের তো এখন হোম আইসোলেশনে থাকতে হচ্ছে। ফলে তাঁদের জীবনযাত্রা নির্বাহ করাই এখন দুষ্কর হয়ে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে এই সব পরিবার যাতে চিকিৎসা চালাতে পারেন, সেজন্যই সরকারের তরফে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।টাকা সরাসরি তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।একইসঙ্গে হরিয়ানার মন্ত্রী জানান, করোনা আক্রান্ত যারা এই সব সুবিধা পাবেন, তাঁদের অবশ্যই পরিবার পেহচান পত্র থাকা বাধ্যতামূলক।পাশাপাশি করোনা সংক্রান্ত সাহায্যের জন্য সরকারের তরফে একটি হেল্প লাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে।সেই হেল্প লাইন নম্বরটি হল–৮৫৫৮৮৯৩৯১১।

এছাড়াও হরিয়ানার স্বাস্থ্য দফতরের জানানো হয়েছে, যারা আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের মধ্যে নেই, অথচ দারিদ্র সীমার নীচে রয়েছেন, তারা করোনায় আক্রান্ত হলে তাদের চিকিৎসার জন্য সরকার ভর্তুকি দেবে।তাঁদের চিকিৎসার জন্য যা খরচ পড়বে, সেই টাকার থেকে ভর্তুকির টাকা বাদ যাবে।স্বাস্থ্য মন্ত্রী জানান, দারিদ্র সীমার নীচে বসবাসকারী কোনও করোনা আক্রান্ত রোগী যদি সরকার অনুমোদিত বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন, তাহলে সরকার ওই রোগীকে প্রতিদিন ১ হাজার টাকা করে চিকিৎসার খরচ দেবে।এভাবে সর্বোচ্চ ৭ হাজার টাকা পর্যন্ত ইনসেনটিভ দেওয়া হবে।রোগীকে যখন হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে, সেই টাকা হাসপাতালের অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

বন্ধ করুন