বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > খোলা আকাশের নিচে নমাজ আদায় বরদাস্ত করা হবে না, বললেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী খট্টর
নমাজ পড়ছেন মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ (PTI Photo) (PTI)
নমাজ পড়ছেন মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ (PTI Photo) (PTI)

খোলা আকাশের নিচে নমাজ আদায় বরদাস্ত করা হবে না, বললেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী খট্টর

  • গুরুগ্রাম মুসলিম কাউন্সিলের অভিযোগ, গুরুগ্রাম থেকে মুসলিমদের ‘অদৃশ্য’ করতেই নমাজ আদায়ে এই বাধা।

বিগত বেশ কয়েক মাস ধরেই হরিয়ানার গুরুগ্রামে উন্মুক্ত স্থানে নমাজ আদায় নিয়ে চরম উত্তেজনা ছড়িয়েছে। ক্ষমতাসীন বিজেপির নেতারাও অনেক সময় নমাজ বিরোধী প্রতিবাদে য়োগ দিয়েছেন। চবে এই নিয়ে সরকারের তরফে এতদিন কোনও মন্তব্য করা হয়নি। শেষ পর্যন্ত এই বিষয়ে মুখ খুললেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টর। শুক্রবার তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন যে খোলা আকাশের নিচে দাঁড়িয়ে নমাজ আদায়ের যে প্রথা রয়েছে, তা বরদাস্ত করা হবে না। তবে তিনি এই পরিস্থিতির সমাধান সূ্ত্র বের করার কথাও বলেন।

শুক্রবার গুরুগ্রাম মেট্রোপলিটন ডেভেলপমেন্ট অথরিটির বৈঠকে যোগ দিতে এসেছিলেন খট্টর। সেদিনই ডানপন্থী একাধিক সংগঠন গুরুগ্রামের বিভিন্ন স্থানে খোলা আকাশের নিচে জুম্মার নমাজ আদায় করতে বাধা দেয় মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের। এর প্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘খোলা আকাশের নিচে এই যে নমাজ আদায়ের প্রথা রয়েছে, তা কখনই মেনে নেওয়া হবে না। একসাথে বসে বিষয়টির একটি সমাধান সূত্র বের করতে হবে।’

এদিকে উন্মুক্ত স্থানে নমাজের বিরুদ্ধে তলা প্রতিবাদের বিরোধিতায় দুই দিন আগেই মুসলিমরাও ‘গুরুগ্রাম মুসলিম কাউন্সিল’ নামক একটি সংগঠন খুলেছে। তাঁদের দাবি, গুরুগ্রাম থেকে মুসলিমদের ‘অদৃশ্য’ করতেই নমাজ আদায়ে এই বাধা। এই প্রেক্ষিতে অবশ্য মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, ‘কোনও ভাবেই সংঘর্ষের পরিস্থিতি উপনীত হতে দেওযা যাবে না। অন্য কারোর অধিকারে হস্তক্ষেপ যেমন করা যাবে না, তেমনই জোর করেও কোনও কিছু করা যাবে না।’ এদিকে মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ একটি তালিকা প্রকাশ করে জানায় যে গুরুগ্রামে বর্তমানে ছয় স্থানে খোলা আকাশের নিচে নমাজ আদায় করা যাবে।   যদিও গুরুগ্রাম মুসলিম কাউন্সিলের অভিযোগ, মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ আদতে আরএসএস-এর সঙ্গে মিলিত।

  

বন্ধ করুন