বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'আর ৪৫ মিনিটের অক্সিজেন আছে', মোদী-শাহদের কাছে কাতর আর্জি ফর্টিস হাসপাতালের
দেশের বিভিন্ন প্রান্তের হাসপাতালে অক্সিজেনের আকাল পড়েছে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
দেশের বিভিন্ন প্রান্তের হাসপাতালে অক্সিজেনের আকাল পড়েছে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

'আর ৪৫ মিনিটের অক্সিজেন আছে', মোদী-শাহদের কাছে কাতর আর্জি ফর্টিস হাসপাতালের

  • দেশের বিভিন্ন প্রান্তের হাসপাতালে অক্সিজেনের আকাল পড়েছে।

আর মাত্র ৪৫ মিনিটের অক্সিজেন পড়ে আছে। রোগীদের প্রাণ বাঁচানোর অবিলম্বে সাহায্য করুন। এমনই কাতর আর্জি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহদের টুইট করল হরিয়ানার ফর্টিস হাসপাতাল।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪ টে ৪৬ মিনিটে ফর্টিস হাসপাতালের টুইটার অ্যাকাউন্টে বলা হয়, 'হরিয়ানার ফর্টিস হাসপাতালে আর মাত্র ৪৫ মিনিটের অক্সিজেন পড়ে আছে। অশোক গেহলট (রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী), রাজনাথ সিং (প্রতিরক্ষামন্ত্রী), পীযূষ গোয়েল (রেলমন্ত্রী), মনোহরলাল খাট্টার এবং অমিত শাহদের দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ এবং রোগীদের জীবন বাঁচানোর জন্য আমাদের অবিলম্বে সাহায্য করার আর্জি জানাচ্ছি।' সেইসঙ্গে আরও টুইটবার্তায় লেখা, ‘ভিওয়াড়ি (রাজস্থানের শহর) থেকে আমাদের হাসপাতালে অক্সিজেনের ট্যাঙ্কার আসার ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য এটা ফর্টিসের জরুরি আবেদন।’ সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কাছে আর্জি জানানো হয়েছে। তবে এই প্রতিবেদন প্রকাশের সময় পর্যন্ত ফর্টিসের তরফে আর কোনও কিছু জানানো হয়নি।

গত কয়েকদিন জেরে করোনার সংক্রমণের বাড়বাড়ন্তের জেরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের হাসপাতালে অক্সিজেনের আকাল পড়েছে। করোনা রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের জন্য রীতিমতো হাহাকার পড়ে গিয়েছে। অক্সিজেনের জোগান নিয়ে বুধবার দিল্লি হাইকোর্টে তীব্র ভর্ৎসনার মুখে পড়েছে কেন্দ্র। ছুটির দিনে একটি আবেদনের জরুরি ভিত্তিতে শুনানিতে কেন্দ্রকে হাইকোর্ট বলে, ‘অক্সিজেনের জোগান বৃদ্ধির জন্য আপনারা (কেন্দ্র) সবদিক খতিয়ে দেখছেন না। ভিক্ষা করুন, ধার নিন বা চুরি করুন।’ কেন এরকম জরুরি পরিস্থিতিতেও কেন কেন্দ্রের ঘুম ভাঙছে না, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রকে নোটিশ দিয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার স্বার্থে অক্সিজেন ও অত্যাবশ্যকীয় ওষুধের জোগানের মতো বিভিন্ন বিষয়গুলির জন্য একটি ‘জাতীয় নীতি’ তৈরির নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। তারপরই কোনও বিধিনিষেধ ছাড়াই অক্সিজেনের জোগান সুনিশ্চিত করার জন্য সব রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে নির্দেশ দেয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক।

বন্ধ করুন