বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > গালওয়ানে চিনাদের মৃত্যুর তথ্য প্রকাশ, সোশ্যাল মিডিয়ায় রোষের মুখে ভারতীয় দূতাবাস
মৃতদের সম্মান প্রদর্শন (AP)
মৃতদের সম্মান প্রদর্শন (AP)

গালওয়ানে চিনাদের মৃত্যুর তথ্য প্রকাশ, সোশ্যাল মিডিয়ায় রোষের মুখে ভারতীয় দূতাবাস

  • চিনে টুইটার বন্ধ। তাই ওয়েইবো বলে একটি মাইক্রো ব্লগিং সাইট ব্যবহার করা হয়। সেখানেই ভারতীয় দূতাবাসের হ্যান্ডেলকে নিশানা করেছে চিনের নেটিজেনরা।

ভারতের সঙ্গে প্যাংগং সো-তে মিটমাট হওয়ার পর অবশেষে গালওয়ানের আংশিক সত্য স্বীকার করে নিয়েছে চিন। লাল ফৌজ চারজন সেনা যে রক্তক্ষয়ী সংগ্রামে মারা গিয়েছে, সেই কথা মেনে নিয়েছে। একই সঙ্গে গালওয়ান সহ সীমান্তের বেশ কিছু ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়েছে তারা। কিন্তু এর জেরে এবার রোষের মুখে পড়েছে চিনের ভারতীয় দূতাবাস। তাদের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল ভরে যাচ্ছে কটুক্তিতে। 

চিনে টুইটার বন্ধ। তাই ওয়েইবো বলে একটি মাইক্রো ব্লগিং সাইট ব্যবহার করা হয়। সেখানেই ভারতীয় দূতাবাসের হ্যান্ডেলকে নিশানা করেছে চিনের নেটিজেনরা। এই প্রথম চিন সরকারি ভাবে স্বীকার করে নিয়েছে যে তাদের চারজন সেনার মৃত্যু হয়েছে। এটা সাধারণত কখনোই চিন করে না। তাই ভারতীয়রা জানলেও বহু চিনের মানুষ এই প্রথম জানতে পারছেন যে গত বছরের ১৫ জুনের রক্তাক্ষয়ী সংগ্রামে লাল ফৌজেরও জওয়ানরা নিহত হয়েছিলেন। কিন্তু সেই ঘটনার কথা এখন জানতে পারছেন চিনের নাগরিকরা। স্বাভাবিকভাবেই আবেগের বহিঃপ্রকাশ ঘটছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভাষায় প্রকাশ করা যায় না, সেই রকম কটুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। 

একই সঙ্গে রাতারাতি বীরের মর্যাদা পাচ্ছেন সেই চার সেনা, যারা গালওয়ানে মারা গিয়েছেন। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই রাশিয়ার ট্যাস জানিয়েছে যে পূর্ব লাদাখে ভারত-চিন হাতাহাতিতে কমপক্ষে ৪৫ জন চিনা সেনা মারা গিয়েছেন। ভারতীয় সেনাও ওরকম সংখ্যা বলেছে। তারপরেই চিনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে দেশের জন্য লড়তে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন চারজন, আহত এক। তাদের নাম ও তাদের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। যেই সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তারা পড়েছেন, সেখানে শোক পালন করা হচ্ছে। এভাবেই চিনের পক্ষ থেকে ড্যামেজ কন্ট্রোল করা হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। 

বন্ধ করুন