বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > হাথরাস কাণ্ডে ‘আন্তর্জাতিক হাত’ দেখছে যোগী সরকার, PFI যোগে আটক চার
হাথরাস নিয়ে বিক্ষোভ (PTI)
হাথরাস নিয়ে বিক্ষোভ (PTI)

হাথরাস কাণ্ডে ‘আন্তর্জাতিক হাত’ দেখছে যোগী সরকার, PFI যোগে আটক চার

হাথরাস কাণ্ডে আন্তর্জাতিক যোগ দেখছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। তাই এই বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

হাথরাস কাণ্ডে আন্তর্জাতিক যোগ দেখছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। তাই এই বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। যেখানে হাথরাসকাণ্ডের মধ্যে দিয়ে উত্তরপ্রদেশ সরকারকে কালিমালিপ্ত করার অপচেষ্টা হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে। এই আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র একটি গোষ্ঠী এবং বিদেশের কিছু ব্যক্তি সরকারকে কালিমালিপ্ত করার জন্য এই ঘটনাকে ব্যবহার করছে। এদের কাজ হল সরকারের বদনাম করা এবং জাতি–দাঙ্গা লাগিয়ে দেওয়া। তবে এই বিষয়ে কোনও উপযুক্ত প্রমাণ এখনও মেলেনি।

জানা গিয়েছে, ভারতীয় দণ্ডবিধির ১০৯, ১২০বি, ১২৪এ, ১৫৩এ, ১৫৩ ও ৪২০ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ধারাগুলির মধ্যে মিথ্যা তথ্য পেশ, সরকারের ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা, তথ্য–প্রযুক্তি আইনের আওতাতেও অভিযোগ দায়ের হয়েছে। যোগী আদিত্যনাথ অভিযোগ করেছেন, যাঁরা তদন্তের অগ্রগতি মানতে চাইছেন না, তাঁরা জাতপাত নিয়ে দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করে রাজ্যের পরিস্থিতি অশান্ত করার চেষ্টা করছেন। সেইসব মানুষরা রাজনৈতিক লাভের কারণে দাঙ্গা লাগিয়ে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা ভাঙার চেষ্টা করছেন।

এই পরিস্থিতির মধ্যে পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়ার ছাত্র সংগঠন ক্যাম্পাস ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়ার চার সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। কারণ তাঁরা দিল্লি থেকে হাথরাসের দিকে আসছিলেন। এই চারজন হলেন– আতিক–উর–রহমান, সিদ্দিকি, মাসুদ আহমেদ এবং আলম। তাঁদের কাছ থেকে কিছু বই ও ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়েছে। এঁদেরকেও পুলিশ সন্দেহ করছে যে, সরকারের বদনাম ও ষড়যন্ত্র করতেই তাঁরা এখানে এসেছিল। তাদের আদালতে তোলা হলে চোদ্দা দিনের হেফাজতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

বিজেপির একটা মহল থেকে এমন অভিযোগও করা হচ্ছে, যোগী সরকারকে বদনাম করার জন্য ১০০ কোটি টাকা ফান্ডিং করা হয়েছে। তাঁদের অভিযোগ, যোগী সরকার উত্তরপ্রদেশের মাফিয়াদের টাইট দিয়েছে। সরকার একের পর এক বড় মাফিয়ার সম্পত্তি বাজেয়াপ্তও করেছে। তাই সরকারের বিরুদ্ধে বড় চক্রান্ত করা হয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা, সিবিআইয়ের তদন্তে আস্থা রাখতে পারছেন না হাথরাসের নির্যাতিতার পরিবার। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের দপ্তর থেকে এক ট্যুইট বার্তায় জানানো হয়, সিবিআইয়ের হাতে হাথরাস গণধর্ষণ মামলা তুলে দিচ্ছে রাজ্য সরকার।স্বরাষ্ট্র দপ্তরের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব অশ্বিনী কুমার অবস্তি জানান, রাজ্য সরকার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। ষড়যন্ত্র এবং জাতি দাঙ্গার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করতেই এই তদন্ত করা হচ্ছে।

পুলিশের অতিরিক্ত ডিজিপি (‌আইনশৃঙ্খলা)‌ প্রশান্ত কুমার বলেন, ‘‌রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যে কথা বলার জন্য না কি মৃতার পরিবারকে ৫০ লক্ষ টাকার টোপ দেওয়া হয়েছে।’‌ নির্যাতিতার হয়ে বিচার চাইতে যাওয়া চন্দ্রশেখর আজাদ এবং বিরোধী নেতৃত্বের বিরুদ্ধে গোষ্ঠী সংঘর্ষের ষড়যন্ত্রের মামলা করেছে তারা। রাজ্যের ১৯টা জায়গায় এই মর্মে এফআইআর দায়ের হয়েছে। সাম্প্রদায়িক ঘৃণা ছড়ানোর পাশাপাশি দেশদ্রোহিতার অভিযোগও আনা হয়েছে। কোভিডে প্রোটোকল ভেঙে ভিড় বাড়ানোর জন্যও মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বন্ধ করুন