HCQ-এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জানার জন্য শনিবার স্বাস্থ্যকর্মীদের উপরে পরীক্ষামূলক এই ওষুধ প্রয়োগ করে ICMR। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)
HCQ-এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জানার জন্য শনিবার স্বাস্থ্যকর্মীদের উপরে পরীক্ষামূলক এই ওষুধ প্রয়োগ করে ICMR। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)

হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন-এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া, দেখা দিল পেট ব্যথা ও বমির ভাব

  • স্বাস্থ্যকর্মীদের ১০% পেট ব্যথার কথা জানিয়েছেন এবং ৬% গা-বমি ভাব দেখা দিয়েছে। ১.৩% কর্মীর হাইপোগ্লাইসেমিয়া বা ব্লাড সুগার লেভেলে পতন ইত্যাদি উপসর্গ দেখা দিয়েছে।

Covid-19 চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওযুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন (HCQ) খাওয়ার পরে পেটের ব্যথা ও বমির অনুভূতি দেখা দিল স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে।

সম্প্রতি HCQ-এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জানার জন্য শনিবার স্বাস্থ্যকর্মীদের উপরে পরীক্ষামূলক এই ওষুধ প্রয়োগ করে ICMR।

রবিবার সংস্থার মহামারী ও সংক্রামক রোগ বিভাগের প্রধান রামন আর গঙ্গাখেড়কর জানিয়েছেন, ‘যে সমস্ত স্বাস্থ্যকর্মীর শরীরে HCQ-এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে, তাঁদের গড় বয়স ৩৫ বছর। স্বাস্থ্যকর্মীদের ১০% পেট ব্যথার কথা জানিয়েছেন এবং ৬% গা-বমি ভাব দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন। ১.৩% কর্মীর হাইপোগ্লাইসেমিয়া বা ব্লাড সুগার লেভেলে পতন ইত্যাদি উপসর্গ দেখা দিয়েছে।’

জানা গিয়েছে, পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে এমন স্বাস্থ্যকর্মীদের ২২% পুরনো শারীরিক সংস্যায় ভুগছেন, যেমন ডায়াবিটিস, অস্বাভাবিক রক্তচাপ, কার্ডিওভ্যাসকুলার অথবা শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা।



আরও পড়ুন: করোনার চিকিৎসায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন বিপদ ডেকে আনতে পারে, দাবি AIIMS-এর


গঙ্গাখেড়কর জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য বিভাগে কাজ করা সত্ত্বেও প্রায় ১৪% কর্মী নিজেদের হার্টের হাল জানতে ইসিজি করান না। মনে করা হচ্ছে, নিজেদের পুরনো শারীরিক সমস্যা রয়েছে বলেই তাঁরা করোনা সংক্রমণ রোধের ওষুধ পরীক্ষার বিষয়ে স্বেচ্ছায় মত দিয়েছিলেন।

অন্য এক পরীক্ষায় ৪৮০ জন Covid-19 রোগীর উপরে পরীক্ষামূলক HCQ প্রয়োগ করা হয়। তাঁদের হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ডোজের পাশাপাশি ৮ সপ্তাহ ধরে অ্যান্টিবায়োটিক ও অ্যাজিথ্রোমাইসিন দেওয়া হবে।



আরও পড়ুন: গাঁটের ব্যথার ওষুধেই করোনাজয় নরেন্দ্রপুরের বৃদ্ধার, দাবি ডাক্তারদের


গঙ্গাখেড়কর জানিয়েছেন, আড়াই মাস পরে এই পরীক্ষার ফলাফল জানা যাবে। পরীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত সমস্ত রোগীকেই রাখা হয়েছে দিল্লির এইমস হাসপাতালে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, করোনা সংক্রমণ রোখায় Remdesivir ওষুধ প্রয়োগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রস্তাবিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। ভাইরাসের সংখ্যাবৃদ্ধিতে প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের জোগান কমাতে সক্ষম এই ওষুধ, দাবি করেছে তার নির্মাতা সংস্থা জিলিড। বিষয়টি আপাতত পর্যবেক্ষণ স্তরে রাখতে সম্মত হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক।

বন্ধ করুন