বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > অ্যালোপ্যাথি নিয়ে করা বিতর্কিত মন্তব্য ফেরাতে রামদেবকে নির্দেশ হর্ষ বর্ধনের
স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন এবং রামদেব (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (HT_PRINT)
স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন এবং রামদেব (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (HT_PRINT)

অ্যালোপ্যাথি নিয়ে করা বিতর্কিত মন্তব্য ফেরাতে রামদেবকে নির্দেশ হর্ষ বর্ধনের

  • অ্যাল্যোপ্যাথি ওষুধ এবং আধুনিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে নিয়ে করা রামদেবের বিতর্কিত মন্তব্য ফেরানোর জন্য বললেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।

অ্যাল্যোপ্যাথি ওষুধ এবং আধুনিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে অবজ্ঞা করেন যোগ গুরু রামদেব। এই বিষয়ে ভারতীয় মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন অভিযোগ জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনের কাছে। এরপরই এবার অ্যাল্যোপ্যাথি ওষুধ এবং আধুনিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে নিয়ে করা রামদেবের বিতর্কিত মন্তব্য ফেরানোর জন্য বললেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।

এর আগে ভারতীয় মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের অভিযোগের পর সুর বদল করেছিল রামদেবের সংস্থা পতঞ্জলি। এই বিতর্ক প্রসঙ্গে পতঞ্জলি যোগপীঠ ট্রাস্টের তরফে এক বিবৃতি প্রকাশ করে দাবি করা হয়, যোগগুরু রামদেব আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার উপর পূর্ণ আস্থাশীল। পতঞ্জলির তরফে বলা হয়, রামদেব আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার প্রতি আস্থাশীল। তবে তিনি জালিয়াতি এবং মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।

উল্লেখ্য, এদিনই আইএমএ-র তরফে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনের কাছে চিঠি লিখে দাবি করা হয়, রামদেবের নামে মামলা হোক, নয়ত দেশ থেকে তুলে দেওয়া হোক আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা। সম্প্রতি পতঞ্জলির বিজ্ঞাপনে বাবা রামদেবকে অ্যালোপ্যাথি ওষুধ এবং আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার বিরুদ্ধে কথা বলতে শোনা গিয়েছে। আর এতেই ক্ষেপেছে ভারতীয় মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন। সংগঠনের বক্তব্য, মহামারী আইন প্রয়োগ করে রামদেবের বিরুদ্ধে মামলা করা হোক।

পতঞ্জলির একটি বিজ্ঞাপনে রামদেবকে বলতে শোনা যায়, 'অ্যালোপ্যাথি ওষুধ খেয়ে লক্ষাধিক মানুষের মৃত্যু হয়।' এরপর আরও একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয় যাতে রামদেবকে বলতে শোনা যায়, অ্যালোপ্যাথি বোকাদের বিজ্ঞান। প্রথমে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ফেল করল, তারপর রেমডেসিভির, আর এখন প্লাজমা থেরাপি। এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে চিকিৎসকদের সংগঠন দাবি করে, রামদেব এই মন্তব্যের মাধ্যমে ডিজিসিআই-এর গ্রহণযোগ্যতাকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে। এরপরই এবার রামদেবকে তাঁর মন্তব্য ফেরাতে বললেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্তর

বন্ধ করুন