তিন পর্ন ওয়েবসাইটের বিরুদ্ধে বৈষম্যের অভিযোগে মামলা।
তিন পর্ন ওয়েবসাইটের বিরুদ্ধে বৈষম্যের অভিযোগে মামলা।

ভিডিওয়ে সাবটাইটেল নেই কেন? তিনটি পর্ন সাইটের বিরুদ্ধে মামলা বধির ব্যক্তির

ক্যাপশন ছাড়া বধির ও শ্রবণশক্তিহীন মানুষ অভিযুক্তদের ওয়েবসাইটে থাকা ভিডিয়ো কনটেন্ট উপভোগ করতে পারেন না, যা সাধারণ মানুষ পারেন।

শ্রবণশক্তি নেই বলে যৌন উত্তেজক দৃশ্য পুরোপুরি উপভোগ করতে পারেন না। এমন দৃশ্যে ক্যাপশন ব্যবহার না করায় তিন পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইটের বিরুদ্ধে বৈষম্যের মামলা করলেন নিউ ইয়র্কের এক বাসিন্দা।

গত বৃহস্পতিবার ব্রুকলিন ফেডেরাল কোর্টে পর্নহাব, রেডটিউব ও ইউপর্ন ওয়েবসাইটের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ইয়ারোস্লাভ সুরিস। তাঁর অভিযোগ, আমেরিকানস উইথ ডিজেবিলিটিস আইনে থাকা বৈষম্য এড়ানোর শর্ত লঙ্ঘন করেছে ওই তিন সংস্থা।

একই অভিযোগে এর আগে ফক্স নিউজ চ্যানেলের বিরুদ্ধেও মামলা ঠুকেছেন সুরিস। চলতি মাসে বেশ কিছু যৌন উত্তেজক ভিডিয়ো দেখার ইচ্ছে রয়েচে তাঁর। সেই সময় দৃশ্যের সঙ্গে শব্দ না শুনতে পেলে নিজেকে বঞ্চিত মনে করবেন বলে তিনি আদালতে জানিয়েছেন।

তেইশ পাতার দীর্ঘ অভিযোগপত্রে তিনি লিখেছেন, ‘ক্যাপশন ছাড়া বধির ও শ্রবণশক্তিহীন মানুষ অভিযুক্তদের ওয়েবসাইটে থাকা ভিডিয়ো কনটেন্ট উপভোগ করতে পারেন না, যা সাধারণ মানুষ পারেন।’

শুধু অভিযোগ জানিয়েই অবশ্য তিনি ক্ষান্ত হননি। মামলায় ওই তিন সংস্থার কাছে তিনি সুখ থেকে বঞ্চিত হওয়ার কারণে আর্থিক ক্ষতিপূরণও দাবি করেছেন।

পর্নহাব-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট করি প্রাইস অবশ্য জানিয়েছেনস তাঁদের ওয়েবসাইটে ক্যাপশনযুক্ত পর্নোগ্রাফিক ভিডিয়োর একটি আলাদা বিভাগ রয়েছে। তিনি সেই বিভাগের লিংকও আদালতে জমা দিয়েছেন।

বন্ধ করুন