বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Himanta Night Safari in Kaziranga: 'আইন ভেঙে' মাঝরাতে সাধগুরুকে নিয়ে কাজিরাঙ্গায় হিমন্ত, উঠল নিন্দার ঝড়

Himanta Night Safari in Kaziranga: 'আইন ভেঙে' মাঝরাতে সাধগুরুকে নিয়ে কাজিরাঙ্গায় হিমন্ত, উঠল নিন্দার ঝড়

জিপ সাফারিতে সাধগুরু এবং হিমন্ত বিশ্বশর্মা (ছবি - এএনআই) ( Jayanta Mallabaruah Twitter)

পশুপ্রেমীদের অভিযোগ, সুর্যাস্তের পরে সাফারিতে গিয়ে বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আইন, ১৯৭২-এর লঙ্ঘন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই আবহে অসমের মুখ্যমন্ত্রী, পর্যটনমন্ত্রী এবং সাধগুরুর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন দু'জন পরিবেশ কর্মী। 

অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা এবং আধ্যাত্মিক গুরু জগদীশ বাসুদেব ওরফে সাধগুরু শনিবার সূর্যাস্তের পরে কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যান এবং টাইগার রিজার্ভে জিপ সাফারি করেন। এই ঘটনায় হিমন্ত এবং সাধগুরুর বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় উঠেছে। উল্লেখ্য, ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে চিহ্নিত কাজিরাঙ্গায় পর্যটকদের শুধুমাত্র দিনের বেলায় জিপ সাফারিতে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। এই আবহে মুখ্যমন্ত্রী এবং আধ্যাত্মিক গুরু নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

পশুপ্রেমীদের অভিযোগ, সুর্যাস্তের পরে সাফারিতে গিয়ে বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আইন, ১৯৭২-এর লঙ্ঘন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। পার্কের গন্ডার, হাতি, বাঘ এবং অন্যান্য প্রাণীদের জন্য রাতের সাফারি ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। এই আবহে অসমের মুখ্যমন্ত্রী, পর্যটনমন্ত্রী এবং সাধগুরুর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন দু'জন পরিবেশ কর্মী। অভিযোগকারেদের বক্তব্য, ‘বিকেল চারটার পরে কাজিরাঙায় সাফারি করা যায় না। এই নিয়ম ভেঙেছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। রাতে ওই সময়ের পরে সাফারি করেছেন। আইন সবার জন্য সমান। তাহলে কী করে তারা ওই আইন ভাঙতে পারেন?’

এদিকে এই ঘটনা ঘিরে আরও বিতর্ক বেড়েছে এক ভাইরাল ভিডিয়ো নিয়ে। সেই ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, সাধগুরু গাড়ি চালাচ্ছেন। ওই গাড়িতে আছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী এবং পর্যটনমন্ত্রী। এদিকে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ উড়িয়ে হিমন্তের বক্তব্য, ‘কোনও আইনভঙ্গ করা হয়নি। বন্যপ্রাণ আইন অনুসারে, সংরক্ষিত জায়গাতে রাতেও প্রবেশ করার অনুমতি দিতে পারেন ওয়ার্ডেন। কোনও আইন রাতে কাউকে সেখানে প্রবেশ করতে বাধা দিতে পারে না।’  

বন্ধ করুন