বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘‌অসমে মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই’‌, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মন্তব্যে দেশজুড়ে বিতর্ক
প্রচারে হেমন্ত (HT_PRINT)
প্রচারে হেমন্ত (HT_PRINT)

‘‌অসমে মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই’‌, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মন্তব্যে দেশজুড়ে বিতর্ক

  • তাঁর দাবি, অসমে আর করোনার সংক্রমণ নেই। সুতরাং মাস্ক পরারও কোনও প্রয়োজন নেই।

দেশজুড়ে করোনা আবার দাপট দেখাচ্ছে। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীকে জরুরি বৈঠক করতে হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যবাসীকে মাস্ক না পরামর্শ দিলেন অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। তাঁর দাবি, অসমে আর করোনার সংক্রমণ নেই। সুতরাং মাস্ক পরারও কোনও প্রয়োজন নেই। এই মন্তব্য করার পর তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। অসমে এখন বিধানসভা নির্বাচন চলছে। আগামী ৬ এপ্রিল শেষ দফার নির্বাচন। তার আগে এই মন্তব্য দলের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

সম্প্রতি বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকে হুমকি দেওযার জন্য নির্বাচন কমিশন তাঁর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। তারপর খানিক কোপ কমাতেই ফের বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন অসমের প্রথমসারির মন্ত্রী। তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘‌অসমে যখন করোনার কোনও সংক্রমণই নেই, তখন কেন শুধু শুধু মাস্ক পরছেন রাজ্যবাসী! এতে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে।’‌ দেশজুড়ে যখন নতুন করে করোনা দাপট দেখাতে শুরু করেছে তখন এক রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কীভাবে এই পরামর্শ দিচ্ছেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন অনেকেই।

দেশজুড়ে যখন দ্বিতীয় করোনার তরঙ্গ আছড়ে পড়ছে বলে বৈঠকে বসতে হচ্ছে তখন অসম ব্যতিক্রম কেন?‌ এই বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে হিমন্ত জবাব দেন, ‘‌কেন্দ্র নির্দেশ দিতেই পারে। নির্দেশিকাও জারি করতেই পারে। কিন্তু অসমে তো কোভিডই নেই! যখন কোভিড আবার ফিরবে, তখন রাজ্যবাসীকে ফের মাস্ক পরতে বলব। কোভিড যদি রাজ্যে না থাকে তাহলে আমার কী করার আছে! মাস্ক পরলে বিউটি পার্লারগুলো চলবে কী করে? বিউটি পার্লারগুলোকেও তো বাঁচিয়ে রাখতে হবে। তাই রাজ্যবাসীকে সাময়িক ছাড় দিয়েছি।’‌

এই মন্তব্য নিয়ে যখন দেশের সর্বত্র চর্চা শুরু হয়েছে তখন তিনি সাফাই দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘‌যাঁরা আমার মাস্ক সংক্রান্ত মন্তব্য নিয়ে মজা করছেন তাঁরা অসমে এসে দেখুন কিভাবে আমরা করোনা–কে প্রতিরোধ করেছি। দিল্লি, কেরল, মহারাষ্ট্র–সহ অন্যান্য রাজ্যের থেকে আমাদের পরিস্তিতি বাল। আর্থিক পরিস্থিতিও উল্লেখযোগ্যভাবে পুনরুদ্ধার হয়েছে। রাজ্য মহাসমারোহে বিহু উৎসব পালিত হবে।’‌

বন্ধ করুন